• বুধবার, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:২৭ রাত

মায়ের কোলে করে আসা হৃদয় এখন ঢাবি'র কাঙ্খিত বিভাগে

  • প্রকাশিত ০৮:২৫ রাত নভেম্বর ২৮, ২০১৮
সীমা সরকার
ছবি : সংগৃহীত

এই বিভাগে পড়ার ইচ্ছার পেছনে কারণ জানতে চাইলে হৃদয় জানান, তিনি দেশের জন্য কাজ করতে চান। ভবিষ্যতে বিসিএস পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পররাষ্ট্র ক্যাডার হওয়ার স্বপ্ন দেখেন তিনি

মায়ের স্নেহের যথাযথ প্রতিদান দিলেন হৃদয় সরকার। দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক (আইআর) বিভাগে স্নাতক ১ম বর্ষে ভর্তি হয়েছেন তিনি। 

আন্তর্জাতিক সম্পর্কের মতো বহুল আকাঙ্ক্ষিত বিভাগে ভর্তির বিষয়ে হ্রদয় ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “আমি খুবই খুশি ও আনন্দিত এই (আইআর) বিভাগে ভর্তি হতে পেরে। আমার অনেক আগে থেকেই এই বিভাগে পড়বার ইচ্ছে ছিল।” 

এই বিভাগে পড়ার ইচ্ছার পেছনে কারণ জানতে চাইলে হৃদয় জানান, তিনি দেশের জন্য কাজ করতে চান। ভবিষ্যতে বিসিএস পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পররাষ্ট্র ক্যাডার হওয়ার স্বপ্ন দেখেন তিনি।  

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘খ’ ইউনিটে ফল প্রকাশের পর জানা যায় উত্তীর্ণের তালিকায় নাম এসেছে হৃদয়ের। মেধাক্রমে ৩৭৪০ তম হলেও প্রতিবন্ধি কোটায় সারির প্রথম দিকের বিষয়টিতে ভর্তির যোগ্যতা পান তিনি। 

প্রসঙ্গত, ভর্তি পরীক্ষায় মায়ের কোলে করে আসার এক ছবি ফেসবুকে প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই সকলের কাছে সমাদৃত হয় তার অদম্য ইচ্ছা ও তার মায়ের পরম মমত্ব।

ছবিটি ভাইরাল হওয়ার পর বিবিসি প্রকাশিত বিশ্বের ১০০ জন অনুপ্রেরণাদায়ী নারীর তালিকায় স্থান (৮১তম) পেয়েছেন হৃদয়ের মা সীমা সরকার। 

নেত্রকোনার এই কৃতিসন্তানের হাতের সবকটি আঙ্গুলও ঠিকভাবে কাজ করে না। একারণেই মা তাকে সবসময় কোলে করেই আনা নেওয়া করতেন। হৃদয় উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন আবু আব্বাস ডিগ্রি কলেজ নেত্রকোনা থেকে এবং মাধ্যমিক পাশ করেছেন নেত্রকোনা জিলা স্কুল থেকে।