• বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৪ রাত

বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের যেসব হেভিওয়েট প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল

  • প্রকাশিত ১১:৪৯ রাত ডিসেম্বর ২, ২০১৮
নির্বাচন কমিশন

খালেদা জিয়াসহ বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের অনেক হেভিওয়েট প্রার্থীর মনোনয়নপত্র রবিবার যাচাই বাছাই শেষে বাতিল করেছে নির্বাচন কমিশন

খালেদা জিয়াসহ বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের অনেক হেভিওয়েট প্রার্থীর মনোনয়নপত্র রবিবার যাচাই বাছাই শেষে বাতিল করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়া প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মোরশেদ খান, মীর নাসির ও গিয়াসউদ্দিন কাদের চৌধুরী, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আমানুল্লাহ আমান, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার আমিনুল হক, সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়ার ছেলে গণফোরাম নেতা রেজা কিবরিয়া এবং সদ্য বিএনপিতে যোগ দেয়া গোলাম মাওলা রনি।

দুর্নীতির মামলায় সাজা হওয়ায় ঢাকা-২ আসনের বিএনপি প্রার্থী আমানের মনোনয়নপত্র বাতিল করে রিটার্নিং কর্মকর্তা। এছাড়া ঢাকা-৬ আসনের প্রার্থী সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইসরাক হোসেন, ঢাকা আসনের খন্দকার আবু আশফাক এবং ঢাকা-২০ আসনে বিএনপি প্রার্থী সুলতান আহমেদের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছে ইসি।

ঋণখেলাপীর কারণে টাঙ্গাইলে-৪ ও ৮ আসনে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম।

পাশাপাশি ঋণখেলাপীর কারণে টাঙ্গাইল-১ আসনে বিএপির প্রার্থী ফকির মাহাবুব আনাম স্বপন ও টাঙ্গাইল-৬ আসনে সাবেক প্রতিমন্ত্রী বিএনপি নেতা নুর মোহাম্মদ খানের মনোনয়নপত্রও বাতিল করা হয়।

চট্টগ্রাম-৮ আসনে কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোরশেদ খানের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকায় তার মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে বলে নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে।

ঋণখেলাপীর কারণে চট্টগ্রাম-২ ও ৭ আসনে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা গিয়াস উদ্দীন কাদের চৌধুরী এবং চট্টগ্রাম-৬ আসনে তার ছেলে সমির কাদের চৌধুরীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম-৪ আসনে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব আসলাম চৌধুরী, চট্টগ্রাম-৫ আসনে মীর নাসির ও তার ছেলে মীর হেলাল এবং চট্টগ্রাম-৩ আসনে মোস্তফা কামাল পাশার মনোননয়পত্র ঋণখেলাপীর কারণে বাতিল করা হয়েছে।

পটুয়াখালী-৩ আসনে আওয়ামী লীগের আলোচিত সাবেক সংসদ সদস্য সদ্য বিএনপিতে যোগ দেয়া গোলাম মাওলা রনি ও বিএনপির শাহজাহান খানের মনোনয়পত্র বাতিল করা হয়। গত ২৬ নভেম্বর বিএনপিতে যোগ দিয়ে ওই আসনে মনোনয়নপত্র পান রনি।

ঋণখেলাপীর কারণে হবিগঞ্জ-১ আসনে গণফোরাম নেতা রেজা কিবরিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

দুই মামলায় সাজা পাওয়ায় নাটোর-২ আসনে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। তবে একই আসনে তার স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিনের প্রার্থীতা বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। নাটোর-৪ আসনে জামায়াত নেতা দেলোয়ার হোসেনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

রাজশাহী-১ আসনে বিএনপির সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার আমিনুল হকের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছে রিটার্নিং অফিসার।

ঋণখেলাপীর কারণে কিশোরগঞ্জ-২ আসনে বিএনপির প্রার্থী মেজর (অব.) আখতারুজ্জামানের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। এছাড়া কিশোরগঞ্জ-১ আসনে বিএনপি প্রার্থী এম শরিফুল ইসলাম ও খালেধা সাইফুল্লাহ, কিশোরগঞ্জ-৩ আসনে সাইফুল ইসলাম সুমন এবং কিশোরগঞ্জ-৪ আসনে সুরঞ্জন ঘোষের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

এদিকে বিএনপি অভিযোগ করেছে, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের স্বাক্ষরের সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে মানিকগঞ্জে বিএনপির চারজন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

দুর্নীতির মামলায় সাজা পাওয়ায় ফেনী-১, বগুড়া-৬ ও বগুড়া-৭ আসনে খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। ফলে তিনি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে পারছেন না।