• বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:৫৪ দুপুর

ভিকারুননিসা ছাত্রীর আত্মহত্যা: ক্যাম্পাসের সামনে বিক্ষোভ

  • প্রকাশিত ০৫:৪৩ সন্ধ্যা ডিসেম্বর ৪, ২০১৮
ভিকারুননিসার শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা
প্রতিবাদে যোগ দেয়া অভিভাবকদের পুলিশ বলপূর্বক সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। ছবি: মেহেদি হাসান/ ঢাকা ট্রিবিউন

প্রতিবাদে যোগ দেয়া অভিভাবকদের পুলিশ বলপূর্বক সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে

ভিকারুননিসা নূন স্কুল ও কলেজের নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থীর আত্মহত্যার প্রতিবাদে ক্ষোভ প্রকাশ করে অভিভাবকসহ প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী বেইলি রোডে অবস্থিত প্রতিষ্ঠানটির মূল শাখার ক্যাম্পাসের সামনে প্রতিবাদ করছে।   

প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্যমতে, মঙ্গলবার সকাল প্রায় ১০ টা থেকে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান প্রবেশদ্বারের সামনে এই বিক্ষোভ শুরু হয়। পরবর্তীতে প্রতিবাদে যোগ দেয়া অভিভাবকদের পুলিশ বলপূর্বক সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। 

বিক্ষোভ চলাকালে এভাবেই কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন প্রতিবাদরত এক শিক্ষার্থী। ছবি: মেহেদি হাসান/ঢাকা ট্রিবিউন সোমবার বিকালে রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী (১৫) শিক্ষকের ‘অপমান’ সইতে না পেরে রাজধানীর আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠে। 

প্রতিবাদরত শিক্ষার্থীবৃন্দ। ছবি: মেহেদি হাসান/ঢাকা ট্রিবিউন 

পরিবারের বরাত দিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) পুলিশ ফাঁড়ির সাব ইন্সপেক্টর বাচ্চু মিয়া জানান, রবিবার ফাইনাল পরীক্ষা চলাকালে তার কাছে মোবাইল ফোন পান শিক্ষকরা। পরে সোমবার স্কুলের অধ্যক্ষ ওই ছাত্রীর মা-বাবাকে স্কুলে ডেকে পাঠান।


আরও পড়ুন- ভিকারুননিসা শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা, অপদস্থ অধ্যক্ষ


নিহতের বাবা আরও জানান, তার মেয়ে পরীক্ষায় মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নকল করেছে অভিযোগ করে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান শিক্ষিকা নাজনিন ফেরদৌস ও অন্য শিক্ষকেরা নিহত শিক্ষার্থীটিকে তার মা-বাবার উপস্থিতিতেই অপমান করে এবং তাদের মঙ্গলবারের মধ্যে স্কুল থেকে ছাড়পত্র (টিসি) নিয়ে যেতে বলা হয়।

তিনি আরও বলেন, "আমার মেয়ে বারবার ক্ষমা চেয়ে আবেদন জানালেও শিক্ষকরা তার কথা না শুনে উল্টো তাকে কক্ষ থেকে বের করে দেন।"


আরও পড়ুন- ভিকারুননিসা ছাত্রীর আত্মহত্যার ঘটনায় তদন্ত কমিটি


পরবর্তীতে তাদের (বাবা-মা) বাসায় যাওয়ার পূর্বেই সে দ্রুত বাসায় গিয়ে সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলে আত্মহত্যা করে।

বাসায় মেয়েকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে দ্রুত তাকে নামিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

আত্মহত্যার ঘটনায় মঙ্গলবার শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের নির্দেশনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠিত হয়।


আরও পড়ুন- হাইকোর্ট: ভিকারুননিসা শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা হৃদয় বিদারক


ঢাকা আঞ্চলিক শিক্ষা অফিসের পরিচালক অধ্যাপক মোহাম্মাদ ইউসুফকে প্রধান করে গঠিত এ তদন্ত কমিটিকে আগামী তিনদিনে মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।


আরও পড়ুন- শিক্ষার্থী আত্মহত্যার ঘটনায় প্রভাতি শাখার প্রধান শিক্ষক সাময়িক বরখাস্ত


তদন্ত কমিটির অন্য দুই সদস্যের মধ্যে রয়েছেন- ঢাকা আঞ্চলিক শিক্ষা অফিসের উপ-পরিচালক শাখাওয়াত হোসেন এবং জেলা শিক্ষা অফিসার বেনজীর আহমেদ।