• বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০২ রাত

এমপি দারার শটগানের গুলিতে যুবক আহত

  • প্রকাশিত ১১:০৬ রাত ডিসেম্বর ৬, ২০১৮
প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাকিল উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, এই ঘটনায় থানায় কোনো অভিযোগ হয়নি।

রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) আসনের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য (এমপি) কাজী আবদুল ওয়াদুদ দারার শটগানের গুলিতে এক যুবক আহত হয়েছেন। 

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে আগ্নেয়াস্ত্রটির লাইসেন্স নবায়নের জন্য পরীক্ষা-নিরিক্ষার সময় পুঠিয়া উপজেলা পরিষদ চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। তবে এমপি দারা সেখানে উপস্থিত ছিলেন না।

আহত যুবকের নাম আশিক ইকবাল (৩০)। তিনিও নিজের আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স নবায়নের জন্য উপজেলা পরিষদে গিয়েছিলেন। তার পায়ে গুলি লেগেছে। আহত অবস্থায় তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

পুঠিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জানান, দুপুরে এমপি আবদুল ওয়াদুদ দারার শটগানটি লাইসেন্স নবায়নের জন্য উপজেলা পরিষদে নিয়ে আসেন তার ভাই কাজী সুজা। এ সময় জেলা প্রশাসনের একজন ম্যাজিস্ট্রেট ও দুইজন কর্মচারী অস্ত্রটি পরীক্ষা করছিলেন। তখন একজন কর্মচারী ট্রিগার ঠিক আছে কি না তা পরীক্ষার জন্য চাপ দেন। এতে গুলি বের হয়ে আশিক আহত হন। পরে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

 ইউএনও আবদুল্লাহ আল মাহমুদ আরও জানান, এমপি দারার ভাই কাজী সুজা জানাননি যে শটগানে গুলি ঢোকানো আছে। তিনি হয়তো বলতে ভুলে গিয়েছিলেন। আর লাইসেন্স নবায়নের সময় ট্রিগারটিই পরীক্ষা করে দেখতে হয়। এ কারণে সেটিতে চাপ দিলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তবে গুলিটি সরাসরি গিয়ে পায়ে লাগেনি। প্রথমে মেঝেতে লাগার পর সেটি উপরের দিকে উঠে পায়ে লাগে। এ কারণে বড় কোনো দুর্ঘটনা ঘটেনি।

 আসন্ন সংসদ নির্বাচনে দলের মনোনয়নবঞ্চিত এমপি কাজী আবদুল ওয়াদুদ দারা জানান, আমি ঢাকায় আছি। কিন্তু লাইসেন্স নবায়নের সময় শেষ হয়ে যাচ্ছে বলে ভাইকে দিয়ে শর্টগানটি পাঠিয়েছিলাম। সেখানে একটা দুর্ঘটনা ঘটে গেছে।

পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাকিল উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, এই ঘটনায় থানায় কোনো অভিযোগ হয়নি।