• শনিবার, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৩৪ সকাল

সাভারে বিএনপি নির্বাচনী প্রচারণায় হামলা, আটক ৪

  • প্রকাশিত ০৬:০৪ সন্ধ্যা ডিসেম্বর ১৭, ২০১৮
সাভারে বিএনপির নির্বাচনী প্রচারণায় হামলা
সাভারের আমিনবাজারে বিএনপির প্রচারণায় হামলা। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

ঘটনার পর এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে

ঢাকার সাভারের আমিনবাজারে নির্বাচনী প্রচারণার সময় বিএনপি সমর্থকদের ওপর আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। এসময় পুলিশ বিএনপির চার নেতা-কর্মীকে আটক করেছে। তবে প্রাথমিকভাবে তাদের নাম জানা যায়নি।

সোমবার (১৭ ডিসেম্বর) বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে আমিনবাজারের হিজলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় বিএনপি নেতা-কর্মীদের অভিযোগ, সোমবার সকাল থেকে আমিনবাজারের হিজলা গ্রামে ঢাকা-২ আসনের বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ব্যারিস্টার ইরফান ইবনে আমান অমি নেতাকর্মীদের নিয়ে লিফলেট বিতরণ করছিলেন। তার সঙ্গে ছিলেন দলের স্থানীয় নেতা-কর্মীরা। 

তার আরও জানান, বেলা সাড়ে এগারটার দিকে স্থানীয় আওয়ামী লীগের কর্মী-সমর্থকরা বিএনপির নেতাকর্মীদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এতে বিএনপির অন্তত ২০ নেতাকর্মী আহত হন। 

এছাড়া, বিএনপির প্রার্থীর গাড়িসহ অন্তত তিনটি মোটরসাইকেল ও পাঁচটি গাড়িও ভাঙচুর করা হয়। 

খবর পেয়ে আমিনবাজার ফাঁড়ির পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বিএনপির চার নেতা-কর্মীকে আটক করে। ঘটনার পর এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। 

ঢাকা-২ আসনের বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ব্যারিস্টার ইরফান ইবনে আমানের অভিযোগ, পূর্বপরিকল্পিতভাবে আওয়ামী লীগ নেতা ও আমিন বাজার ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, ইউপি আওয়ামী লীগ সভাপতি আখিল খন্দকার এবং স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা রকিব আহম্মেদের নেতৃত্বে শতাধিক আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মী তাদের উপর হামলা চালায়। এসময় আমিনবাজার পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা সেখানে থাকলেও তারা কোনও পদক্ষেপ নেননি। এছাড়াও আওয়ামী লীগের লোকজন তাদের নেতাকর্মীদের উপর হামলা চালালেও পুলিশ উল্টো তার দলের চার নেতাকর্মীকে আটক করেছে।

তবে হামলার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন আওয়ামী লীগ নেতা রকিব উদ্দিন। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ কোনও হামলা করেনি। বিএনপির লোকজন অভ্যন্তরীণ সংঘর্ষের দায় তাদের উপর চাপানোর চেষ্টা করছে। তবে যুবলীগের এক কর্মীকে বিএনপি প্রার্থীর গাড়ির ধাক্কা দিলে সেখানে সামান্য জটলা হয়েছিল। তবে কোনও ধরনের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেনি।

আমিনবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই জামাল হোসেন সংঘর্ষের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, চার জনকে আটক করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে আটককৃতদের নাম জানাননি তিনি।