• বুধবার, নভেম্বর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০৯ রাত

বরিশালে ঐক্যফ্রন্ট-আ.লীগ পাল্টাপাল্টি হামলার অভিযোগ

  • প্রকাশিত ০৯:১৭ রাত ডিসেম্বর ১৭, ২০১৮
বরিশাল
বরিশালের উজিরপুরে পাল্টাপাল্টি হামলার আভিযোগ করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও আওয়ামী লীগ

পাল্টাপাল্টি হামলার অভিযোগ করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও আওয়ামী লীগ

বরিশাল-২ (বানারীপাড়া-উজিরপুর) আসনে পাল্টাপাল্টি হামলার অভিযোগ করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও আওয়ামী লীগ। সোমবার (১৭ নভেম্বর) দুপুরে উজিরপুর উপজেলার ডাবেরকুল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে। হামলায় স্থানীয় সাংবাদিকসহ কমপক্ষে ২০ জন আহত এবং নির্বাচনী কাজে ব্যবহৃত দুটি মাইক্রোবাস ও ১০টি মোটর সাইকেল ভাঙচুর করা হয় বলে ইউএনবি'র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী সরফুদ্দিন আহমেদ সান্টুর প্রধান নির্বাচন সমন্বয়ক আব্দুল মাজেদ তালুকদারের অভিযোগ, সোমবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে উজিরপুর উপজেলার বরাকোটা ইউনিয়নের ডাবেরকুলে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সমর্থকরা তাদের ওপর হামলা চালায়।

তবে হামলার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী শাহে আলম। পাল্টা অভিযোগ করে তিনি বলেন, বিএনপি প্রার্থীর সন্ত্রাসী বাহিনী নৌকার প্রচারণায় বাধা এবং তাদের কর্মী-সমর্থকদের ওপর হামলা চালিয়েছে।

বিএনপি প্রার্থীর প্রধান সমন্বয়ক আব্দুল মাজেদ তালুকদার জানান, সোমবার বরাকাটা ইউনিয়নে দিনভর উঠান বৈঠক ছিল। পাশাপাশি বিকালে ওই এলাকায় একটি উঠান বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। উঠান বৈঠকের উদ্দেশ্যে যাবার পথে ডাবেরকুলে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা জয় বাংলা শ্লোগান দিয়ে গাড়িবহরে হামলা করে।

এতে তিতুমির কলেজ ছাত্রদলের সহ-সভাপতি রফিকুল ইসলাম রফিক, সহ-সাধারণ সম্পাদক রনি হাওলাদার, জল্লা ইউনিয়ন যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হক, রিয়াজ খান, বরাকোটা ইউনিয়ন ছাত্রদলের সভাপতি কাইয়ুম খান, গুঠিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি শাহীন হাওলাদার, ছাত্রদল নেতা রনি সরদার, মুন্না হাওলাদার ও মনিরসহ আনুমানিক ২০ জন আহত হয়েছেন। চারজনকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিএনপি নেতাকর্মীদের অভিযোগ, পূর্ব পরিকল্পিতভাবে বরিশাল-২ আসনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী শাহে আলম এর নেতৃত্বে বিএনপি প্রার্থীর গাড়িবহরে হামলা করা হয়েছে। এই ঘটনায় উপজেলা প্রশাসন এবং রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মৌখিকভাবে অভিযোগ করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

তবে হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে বিএনপি প্রার্থীর সমর্থকদের বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ করেছেন এই আসনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী শাহে আলম।

তিনি বলেন, ‘আমাদের লোকজন কারোর ওপর হামলা করেনি বরং বিএনপি প্রার্থীর সমর্থকরাই আমাদের প্রচারণায় বাধা দিচ্ছে। বেলা সাড়ে ১২টার দিকে তারা ডাবেরকুল বাজারে আমাদের নেতা-কর্মীদের ওপর তারা হামলা করে। এতে বরাকোটা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কামাল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জহুরুল হক হল ছাত্রলীগের সভাপতি সোহানুর রহমান ও স্থানীয় ছাত্রলীগ কর্মী রাফিসহ ১০ জনের মতো আহত হয়েছেন।’

বিএনপি নিজেদের অপরাধ ঢাকতে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে বলে অভিযোগ নৌকার প্রার্থীর।

এ প্রসঙ্গে উজিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শিশির কুমার পাল বলেন, ‘আমার থানায় এমন কোনও ঘটনা ঘটেছে বলে জানা নেই। এমনকি বিএনপি কিংবা আওয়ামী লীগের কেউ এ ধরনের অভিযোগ করেনি।’