• বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ২৪, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৭:৪২ রাত

জুমার নামাজ পড়া হলো না আ. লীগ নেতা বাদলের

  • প্রকাশিত ০৪:২৯ বিকেল জানুয়ারী ৪, ২০১৯
দুর্ঘটনায় দুমড়ে-মুচড়ে যাওয়া বাদল মিয়ার মটরসাইকেল। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন
দুর্ঘটনায় দুমড়ে-মুচড়ে যাওয়া বাদল মিয়ার মোটরসাইকেল। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন

নিহত বাদল নগর জালফৈ গ্রামের মৃত জহুরুল ইসলাম মাস্টারের ছেলে। তিনি টাঙ্গাইল পূর্বাঞ্চল আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ব্যবসায়ী ছিলেন।

জুমার নামাজ পড়া হলো না আওয়ামী লীগ নেতা বাদল মিয়ার। টাঙ্গাইলের সদর উপজেলায় মসজিদে নামাজ পড়তে যাওয়ার পথে মোটরসাইকেল ও বাসের সংঘর্ষে তার মৃত্যু হয়। 

আজ শুক্রবার দুপুরে উপজেলার ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের নগর জলফৈ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।  

নিহত বাদল নগর জালফৈ গ্রামের মৃত জহুরুল ইসলাম মাস্টারের ছেলে। তিনি টাঙ্গাইল পূর্বাঞ্চল আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ব্যবসায়ী ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বাদল মিয়া ও রায়হান খান নামের এক ব্যক্তি মোটরসাইকেলে করে দুপুরে করটিয়া বাজার জামে মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে যাচ্ছিলেন। পথমধ্যে  নগর জলফৈ এলাকায় রাস্তা পার হওয়ার সময় ঢাকাগামী একটি বাস তাকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই বাদল মিয়া (৪০) নিহত হন এবং রায়হান খান গুরুতর আহত হন। 

পরে রায়হান খানকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

এ ঘটনায় স্থানীয় জনতা বিক্ষুব্ধ হয়ে মহাসড়ক প্রায় পৌনে এক ঘণ্টা অবরোধ করে রাখে।

এ বিষয়ে টাঙ্গাইল মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সায়েদুর রহমান জানান, জড়িত বাসটিকে পুলিশের হেফাজতে নেওয়া হলেও চালক পলাতক রয়েছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।