• রবিবার, ডিসেম্বর ০৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫২ রাত

অ্যালুমিনিয়াম ফয়েলে আসবে এসএসসির প্রশ্নপত্র

  • প্রকাশিত ০৮:২০ রাত জানুয়ারী ২০, ২০১৯
শিক্ষা মন্ত্রণালয়
ছবি: সংগৃহীত।

গুজব প্রতিহত করতে তথ্যমন্ত্রণালয় ও বিটিআরসির বিশেষ সেল এই পরীক্ষার সময় দায়িত্ব পালন করবে

প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে আসন্ন এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় প্রথমবারের মতো অ্যালুমিনিয়মের ফয়েল পেপারের খামে প্রতিটি কেন্দ্রে প্রশ্নপত্র পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। রবিবার (২০ জানুয়ারি) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়জিত এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী এই তথ্য জানিয়েছেন বলে বাংলা ট্রিবিউনের একটি খবরে বলা হয়েছে।

ডা. দীপু মনি বলেন, "এবার এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অ্যালুমিনিয়ামের ফয়েল পেপারের খামে প্রশ্নপত্র প্রতিটি কেন্দ্রে পাঠানো হবে। এটি বিশেষ ধরনের খাম, যেটা দেখে বোঝা যাবে খামটি এর আগে কখনও খোলা হয়েছে কি না।এর আগে প্রশ্ন ফাঁস রোধে কাগজের খামে উন্নতমানের টেপ ব্যবহার করে কেন্দ্রে কেন্দ্রে প্রশ্নপত্র পাঠানো হতো। এই প্রথম অ্যালুমিনিয়ামের ফয়েল পেপারে মুড়িয়ে প্রশ্নপ্রত্র কেন্দ্রে কেন্দ্র পাঠানো হবে। এই খাম এমনভাবে তৈরি এবং এতে এমনভাবে প্রশ্নপত্র মোড়ানো থাকবে যে, খাম দেখলেই বোঝা যাবে আগে খামটি খোলা হয়েছে কি না?"

শিক্ষামন্ত্রী আরো বলেন, "পরীক্ষার হলের আশপাশে যতটুকু সম্ভব ১৪৪ ধারা জারি থাকবে। গুজব রটনাকারীদের শনাক্ত করে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইতোমধ্যে নজরদারি শুরু হয়ে গেছে। যারা আগেও এ কাজ করেছে বা প্রশ্নফাঁসে যুক্ত ছিল তাদের বিরুদ্ধেও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।"

"এছাড়াও পরীক্ষা সংশ্লিষ্টরা ছাড়া কেউ পরীক্ষা কেন্দ্রে ঢুকতে পারবেন না। কেউ মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন না। ছবি তোলা বা ইন্টারনেট সংযোগ নেই এমন একটি ফোন শুধু কেন্দ্রসচিব ব্যবহার করতে পারবেন। কেউ মোবাইল ফোন ব্যবহার করলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে", যোগ করেন শিক্ষামন্ত্রী।

পরীক্ষাকেন্দ্রে প্রবেশের সময় সম্পর্কে তিনি বলেন, "পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীদের অবশ্যই পরীক্ষা হলে প্রবেশ করে নির্ধারিত আসনে বসতে হবে। এছাড়া অন্যান্য নির্দেশনা আগের বছরের মতোই রাখা হয়েছে। তবে পরীক্ষা কেন্দ্র প্রবেশে যদি একান্তই কারও দেরি হয়, তাহলে তা কেন্দ্র প্রধানের রেজিস্ট্রারে লিপিবদ্ধ করে, সে তথ্য শিক্ষা বোর্ডে পাঠাতে হবে। ২০১৮ সালে যেভাবে আমরা সফল হয়েছি, সেভাবে এবারও আমরা সফল হবো বলে আশা করি"

এসময় গুজব প্রতিহত করতে তথ্যমন্ত্রণালয় ও বিটিআরসির বিশেষ সেল এই পরীক্ষার সময় দায়িত্ব পালন করবে বলেও জানান শিক্ষামন্ত্রী ড. দীপু মনি।

এসময় প্রশ্নফাঁস রোধে শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকের সচেতনতার গুরুত্বও তুলে ধরেন শিক্ষামন্ত্রী।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, আগামী ২ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমানের পরীক্ষা। এ বছর ২ থেকে ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এসএসসির তত্ত্বীয় পরীক্ষা হবে। আর ২৬ ফেব্রুয়ারি সঙ্গীত বিষয়ের এবং ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে ১২ মার্চের মধ্যে অন্য বিষয়ের ব্যবহারিক পরীক্ষা হবে।