• শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৬ রাত

চানাচুর বিক্রেতার ছুরিকাঘাতে যুবলীগ নেতা খুন

  • প্রকাশিত ০৬:৩৫ সন্ধ্যা জানুয়ারী ২৪, ২০১৯
হত্যাকাণ্ড
প্রতীকী ছবি

খবর ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা চানাচুর বিক্রেতা ইমরান শেখকে পাকড়াও করে পিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে

যশোরের অভয়নগর উপজেলার মশরহাটী গ্রামে এক চানাচুর বিক্রেতার ছুরির আঘাতে প্রাণ হারিয়েছেন জাহিদুল ইসলাম খাঁ (৩৫) নামে এক যুবলীগ নেতা। 

বৃহস্পতিবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলার মশরহাটী গ্রামের ভৈরব নদের ঘাটে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার পর এলাকাবাসী ইমরান শেখ (২৫) নামের ওই চানাচুর বিক্রেতাকে পিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। তার বাড়ি নড়াইলের বাহিরগ্রাম এলাকায়। গুরুতর অবস্থায় তাকে অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে, নিহত জাহিদুল ইসলাম খাঁ অভয়নগর উপজেলার মশরহাটি গ্রামের ইব্রাহিম খাঁর ছেলে। 

নওয়াপাড়া পৌরসভা যুবলীগের আহ্বায়ক মো. হাসান গাজী নিহত জাহিদুল যুবলীগের সদস্য ছিলেন জানিয়ে বলেন, চানাচুর বিক্রেতার ছুরিকাঘাতে তিনি নিহত হয়েছেন।

নিহতের বড়ভাই ওহিদুল ইসলাম খাঁ জানান, দুপুরে মশরহাটি এলাকায় মেসার্স জয়েন্ট ট্রেডিং নামে একটি আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানের (ভৈরব নদের) ঘাটে কাজ করছিলেন জাহিদ। দুপুরবেলা কাজের ফাঁকে ওই চানাচুর বিক্রেতার কাছ থেকে চানাচুর কেনেন তিনি। দাম মেটানোর সময় তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে চানাচুর বিক্রেতা তার কাছে থাকা একটি ছুরি দিয়ে জাহিদুলের বুকের বাম পাশে আঘাত করেন। গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার মারা যান জাহিদ।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা চানাচুর বিক্রেতা ইমরান শেখকে পাকড়াও করে পিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

অভয়নগর থানার ওসি আলমগীর হোসেন সাংবাদিকদের জানান, চানাচুরের দাম নিয়ে জাহিদুল ইসলাম খাঁ ও ইমরান শেখের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে জাহিদুল ইমরানকে মারেন। এ সময় ইমরান তার কাছে থাকা ছুরি দিয়ে জাহিদুলের বুকে আঘাত করলে তিনি মারা যান। জাহিদুলের হত্যাকারী ইমরানকে আটক করা হয়েছে। সে বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন। জাহিদুলের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।