• বুধবার, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০২:২২ দুপুর

লালমনিরহাটে পুলিশের ব্যতিক্রমী 'ওপেন হাউজ ডে'

  • প্রকাশিত ১২:৫১ দুপুর জানুয়ারী ২৯, ২০১৯
সোমবার (২৮-জানুয়ারি) দুপুরে লালমনিরহাট সদর থানা চত্বরে পুলিশ সপ্তাহ-২০১৯ উপলক্ষ্যে 'ওপেন হাউস ডে' অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক
সোমবার (২৮-জানুয়ারি) দুপুরে লালমনিরহাট সদর থানা চত্বরে পুলিশ সপ্তাহ-২০১৯ উপলক্ষ্যে 'ওপেন হাউস ডে' অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

'ঘুষ মানে ভিক্ষাবৃত্তি, এটি সবচেয়ে ঘৃণিত কাজ , কোন পুলিশ সদস্য এই ভিক্ষাবৃত্তি করবেন না’

'ঘুষ মানে ভিক্ষাবৃত্তি। এটি সবচেয়ে ঘৃণিত কাজ। কোন পুলিশ সদস্য এই ভিক্ষাবৃত্তি করবেন না। কর্মফাঁকি মহা দুর্নীতি। এসব বন্ধ করতে হলে সমাজের সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। লালমনিরহাটকে ৯০ শতাংশ মাদকমুক্ত করা হয়েছে। মাদক ও সামাজিক অপরাধমুক্ত লালমনিরহাট গড়তে জিরো টলারেন্স নীতিতে পুলিশ বিভাগ কাজ করে যাচ্ছে।পুলিশের কোন সদস্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমানিত হলে তাকে কঠোর শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে। কোন অন্যায় সহ্য করা হবে না।' সোমবার (২৮-জানুয়ারি) দুপুরে লালমনিরহাট সদর থানা চত্বরে পুলিশ সপ্তাহ-২০১৯ উপলক্ষ্যে 'ওপেন হাউস ডে' অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক এসব কথা বলেন।      

লালমনিরহাট সদর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) রায়হান আলীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক। লালমনিরহাট সদর থানা চত্বরে অনুষ্ঠিত 'ওপেন হাউস ডে' সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন লালমনিরহাট পৌরসভার মেয়র রিয়াজুল হক রিন্টু, জেলা কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির সভাপতি ও চেম্বার অব কমার্সের সাবেক সভাপতি শেখ আব্দুল হামিদ বাবু, জেলা পরিবহন কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি সিরাজুল হক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এ-সার্কেল) মোহাম্মদ হাসান ইকবাল চৌধুরী বক্তব্য রাখেন। এছাড়া 'ওপেন হাউস ডে' আলোচনা সভায় বিভিন্ন এলাকা থেকে অংশ নেওয়া নাগরিক ও জনপ্রতিনিধিরাও বক্তব্য রাখেন। এরমধ্যে মাদক, জুয়া, ইভটিজিং, চুরি ও ক্রিকেট জুয়ার কথা উঠে আসে। 

প্রধান অতিথি পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক বক্তাদের তুলে ধরা সমস্যাগুলো পর্যায়ক্রমে সমাধানের আশ্বাস দিয়ে বলেন, 'সমাজকে বদলে দিতে হবে। সরকারি-বেসরকারি সকল সেক্টরকে অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্ছার হতে হবে। সকল নাগরিককে আইন মেনে চলার সংস্কৃতির পথে হাটতে হবে। পুলিশে কর্মরত প্রত্যেক সদস্য অনিয়ম ও দুর্নীতি মুক্ত করার চেষ্টা চলছে। সবার সহযোগিতায় দেশে মাদক, সন্ত্রাস ও জজ্ঞিবাদ মুক্ত করা হবে। এতে দেশের মানুষকে ভালো কাজে সহযোগিতা করতে হবে। অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে হবে।'