• বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৪:০০ বিকেল

জাফর ইকবাল : ১০ বছর পরে মনে হয় না ফেসবুক থাকবে

  • প্রকাশিত ০৩:০৩ বিকেল জানুয়ারী ২৯, ২০১৯
মুন্সীগঞ্জে মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ড. ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদ রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজে বিজ্ঞান উৎসবের উদ্বোধন করার সময় ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বক্তব্য দেন। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন
মুন্সীগঞ্জে মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ড. ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদ রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজে বিজ্ঞান উৎসবের উদ্বোধন করার সময় ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বক্তব্য দেন। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন

'আমার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নেই। তবে যা শুনি, ফেসবুকে যত বেশি লাইক তত বেশি আনন্দ।'

লেখক, পদার্থবিদ, ও শিক্ষাবিদ ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেছেন ১০ বছর পর ফেসবুক নাও থাকতে পারে। আজ মঙ্গলবার সকালে মুন্সীগঞ্জের নয়াগাওয়ে প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ড. ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদ রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজে বিজ্ঞান উৎসবের উদ্বোধন করার সময় তিনি এসব কথা বলেন। 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল ঘণ্টাব্যাপী উপস্থিত শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। এরপর শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে দেওয়া বক্তৃতায় তিনি বলেন, 'বই পড়া একটা অসাধারণ ব্যাপার। যে বই পড়ে সে অন্যদের থেকে আলাদা। তবে, দুঃখজনকভাবে বিশ্বব্যাপী বই পড়া কমে গেছে। আমার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নেই। তবে যা শুনি, ফেসবুকে যত বেশি লাইক তত বেশি আনন্দ।'

জনপ্রিয় এই লেখক আরও বলেন, 'পৃথিবীতে তথ্যের গুরুত্ব সবচেয়ে বেশি। পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি তথ্য আছে গুগল-ফেসবুক-অ্যামাজন-এদের কাছে। তুমি তোমার পরিশ্রম ও সময় ব্যয় করে ফেসবুককে লাভবান করছ। তোমার পছন্দ-অপছন্দ সব জানে গুগল। এখান থেকে বের না হলে তোমরা আর স্মার্ট থাকবে না। পৃথিবীতে এখন একটা সময় যাচ্ছে যখন আমাদের খুব সতর্ক থাকতে হবে।' 

শিক্ষার্থীদের সতর্ক করে জাফর ইকবাল আরও বলেন, 'তুমি তোমার জীবন নিয়ে কী করবে তা তোমাকে ভাবতে হবে। আগামী দশ বছর পর এসব (ফেসবুক) থাকবে না বলে আমার মনে হয়। ফেসবুক মাদকের মত এক ধরনের নেশা। ফেসবুক ব্যবহার কর, কিন্তু আসক্ত হয়ো না।' 

আমাদের দেশে ছেলে-মেয়ে সমানভাবে এগিয়ে যাচ্ছে জানিয়ে এই অধ্যাপক বলেন, 'তোমরা যদি জানার জন্য লেখাপড়া কর, জিপিএ ৫ এর জন্য নয়, তবে বাংলাদেশটা বদলে যাবে। বাংলাদেশের দায়িত্ব তোমাদের হাতে।'

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন-জেলা প্রশাসক (ডিসি) সায়লা ফারজানা। ফজিলাতুন্নেছা তানিয়ার সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন-অধ্যক্ষ মেজর গাজী মোহাম্মদ তাওহিদুজ্জামান, শিক্ষক ও বিজ্ঞান লেখক সফিক ইসলাম এবং 'দৈনিক সভ্যতার আলো'র সম্পাদক মীর নাসির উদ্দিন উজ্জ্বল।