• রবিবার, আগস্ট ১৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:৩৭ রাত

যৌন হয়রানির অভিযোগে শিক্ষককে অভিভাবকদের জুতাপেটা

  • প্রকাশিত ০২:৫১ দুপুর ফেব্রুয়ারি ৭, ২০১৯
রংপুর নগরীর জলকর
রংপুর নগরীর জলকর এলাকায় আইডিয়াল কিন্ডার গার্ডেনের প্রধান শিক্ষক কর্তৃক পঞ্চম শ্রেনীর স্কুল ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে বিক্ষুব্ধ অভিভাবকরা স্কুল ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেছেন। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক জানান, ‘৮ জন মেয়ে শিক্ষার্থীর মধ্যে ৬ শিক্ষার্থীকেেই বিভিন্ন সময় যৌন হয়রানি করেছে ওই শিক্ষক।’

রংপুর নগরীর জলকর এলাকায় আইডিয়াল কিন্ডার গার্ডেনের প্রধান শিক্ষক কর্তৃক পঞ্চম শ্রেনীর স্কুল ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে বিক্ষুব্ধ অভিভাবকরা স্কুল ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেছেন। বৃহস্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারি)দুপুরে এ বিক্ষোভ করেন। এসময় বিক্ষুব্ধ অভিভাবকরা স্কুল শিক্ষককে জুতাপেটাও করেন। পরবর্তীতে বিক্ষোভের মুখে স্কুল শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়। 

এলাকাবাসী ও অভিভাবকরা অভিযোগ করেছে,‘বুধবার রংপুর নগরীর জলকর এলাকায় আইডিয়াল কিন্ডার গার্ডেনের প্রধান শিক্ষক জহুরুল ইসলাম পঞ্চমশ্রেণিতে পড়ুয়া এক শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানি করে। বিষয়টি ঐ শিক্ষার্থী তার পরিবারকে জানালে তাকে হত্যা করার হুমকি দেয় শিক্ষক। পরবর্তীতে বিষয়টি জানাজানি হলে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী স্কুলটি ঘেরাও করে।পরে পুলিশ অভিযুক্ত স্কুল শিক্ষককে আটক করে নিয়ে যাওয়ার সময় বিক্ষুব্ধ নারীরা তাকে জুতাপেটা করে। 

কোতোয়ালী থানার ওসি তদন্ত মোখতারুল ইসলাম জানান এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে। এদিকে অভিযুক্ত শিক্ষক জহুরুল ইসলাম তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে ঢাকা ট্রিবিউন প্রতিনিধিকে জানায় পঞ্চমশ্রেনীর স্কুল ছাত্রী যে অভিযোগ করেছে তা সত্য নয়। 

তিনি জানান, এখানে আরো শিক্ষক আছেন নারী শিক্ষক আছেন এ ধরনের ঘটনা ঘটে নাই বলে দাবি করেন তিনি। অন্যদিকে যৌন হয়রানির শিকার স্কুল ছাত্রীর চাচী জান্নাতুল ফেরদৌস জানান, ‘বুধবার স্কুল ছুটির পর তার ভাতিজিকে প্রধান শিক্ষক যেতে না দিয়ে তাকে যৌন হয়রানি করেছে।’এ বিষয়টি তারা জানতে পেরে প্রতিবাদ জানাতে এসেছেন। 

অন্যদিকে আর এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক জোসনা বেগম বলেন ওউি কিন্ডার গার্ডেনে ৮ জন মেয়ে শিক্ষার্থী আছে এদের মধ্যে ৬ জন শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন সময় যৌন হয়রানি করেছে ওই শিক্ষক বিষয়টি তারা তাদের সন্তানদের কাছে জানতে পেরেছেন। 

তিনি বলেন, এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ অভিভাবকরা স্কুলটি পুরোপুরি বন্ধ করে দেবার দাবি জানান।