• বুধবার, জুলাই ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৭:৩৬ রাত

পর্দা উঠল 'ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসব'-এর ৫ম আসরের

  • প্রকাশিত ০৪:৩২ বিকেল ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০১৯
পর্দা উঠল ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসবের ৫ম আসরের
উদ্বোধনী পর্বে উপস্থিত ছিলেন জনপ্রিয় চিত্র পরিচালক এবং চিত্র নাট্যকর মতিন রহমান, ইউল্যাবের উপাচার্য অধ্যাপক এইচ. এম. জহিরুল হক এবং গণমাধ্যম এবং সাংবাদিকতা বিভাগের প্রধান অধ্যাপক জুড উইলিয়াম হেনিলো। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

উন্মুক্ত থাকছে সকলের জন্য, চলবে আগামীকাল ১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত

শুক্রবার উৎসবমুখর পরিবেশে শুরু হলো ঢাকাআন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসবের পঞ্চম আসর। রাজধানীর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অফ লিবারেল আর্টস বাংলাদেশের (ইউল্যাব) স্থায়ী ক্যাম্পাসে আয়োজিত এই অনুষ্ঠান চলবে আগামীকাল ১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী আসর শুরু হয় সকাল ১১ টায়। উদ্বোধনী পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনপ্রিয় চিত্র পরিচালক এবং চিত্র নাট্যকর মতিন রহমান। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ইউল্যাবের উপাচার্য অধ্যাপক এইচ. এম. জহিরুল হক এবং গণমাধ্যম এবং সাংবাদিকতা বিভাগের প্রধান অধ্যাপক জুড উইলিয়াম হেনিলো। উদ্বোধনী বক্তব্যে অধ্যাপক এইচ. এম. জহিরুল হক বলেন, “ইউল্যাবের মিডিয়া স্টাডিজ অ্যান্ড জার্নালিজম ডিপার্টমেন্টকে ধন্যবাদ এমন আন্তর্জাতিক মানের উদ্যোগের জন্যে। আশা করি এই আয়োজন আরো অনেক বড় পরিসরে অনেক দূর এগোবে”।   

মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসবের এই আয়োজন মূলত নতুন প্রজন্ম, নতুন প্রযুক্তি এবং নতুন যোগাযোগের মেলবন্ধন ঘটানোর জন্যেই। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মতিন রহমান বলেন," সিনেমাস্কোপের সাথে আমার বন্ধুত্ব অনেক দিনের। এই উৎসব আরো দীর্ঘদিন চলবে।এর ব্যপ্তি বিশ্বময় ছড়িয়ে পড়ুক এই আশাই আমি করি”।

ইউল্যাবের শিক্ষানবিশ প্রোগ্রাম সিনামাস্কোপ আয়োজিত ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসব তার যাত্রা শুরু করে ২০১৫ সালে। সিনেমাস্কোপকে ধন্যবাদ জানিয়ে অধ্যাপক জুড উইলিয়াম হেনিলো বলেন, “সিনেমা তৈরির জন্যে বিভিন্ন রকম মাধ্যম ব্যবহার করা যায়। যেগুলোর অনেককিছু সম্পর্কে আমরা জানিওনা। সেগুলো অনেক খরচ সাপেক্ষ। কিন্তু মোবাইল ফোনেও সিনেমা তৈরি করা যায় এবং তাতে খরচ অনেক কম। সিনেমাস্কোপ এমন একটি সংগঠন যেটা মোবাইল ফোনের এই উপকারিতাকে সবার সামনে নতুন ভাবে তুলে ধরে। পাঁচ বছর আগে   শুরু করা তাদের এই পদক্ষেপ আরো অনেক দূর এগোবে। শুভকামনা তাদের জন্যে"।

পঞ্চম আসরকে কেন্দ্র করে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানটি উন্মুক্ত থাকছে সকলের জন্য। দুই দিনব্যাপী আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে জমাকৃত চলচ্চিত্রগুলো থেকে চূড়ান্ত পর্যায়ে নির্বাচিত চলচ্চিত্রগুলো প্রদর্শিত হবে। আগামিকাল অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে নির্বাচিত চলচ্চিত্রগুলোর মধ্য থেকে সেরা চলচ্চিত্র নির্মাতাদের জন্যে থাকবে ‘সিনেমাস্কোপ বেস্ট ফিল্ম’ অ্যাওয়ার্ড এবং ‘ইউল্যাব ইয়ং ফিল্ম মেকার’ অ্যাওয়ার্ড।