• রবিবার, মে ২৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:২৪ সকাল

নড়াইলে ১ লক্ষ মোমবাতি জ্বালিয়ে একুশে উদযাপন

  • প্রকাশিত ১০:১৯ রাত ফেব্রুয়ারি ২১, ২০১৯
১ লক্ষ মোমবাতি এবং প্রদীপ প্রজ্বলন
নড়াইলে ১ লক্ষ মোমবাতি এবং প্রদীপ প্রজ্বলনের মধ্য দিয়ে ভাষা শহীদদের স্মরণ করা হয়। ছবি: সাইফুল ইসলাম তুহিন/ঢাকা ট্রিবিউন।

শহীদ মিনার, জাতীয় স্মৃতি সৌধ, বাংলা বর্ণমালা, আল্পনাসহ গ্রাম বাংলার নানা ঐতিহ্য তুলে ধরা হয় লাখো মোমবাতি প্রজ্জ্বলনের মধ্য দিয়ে

‘অন্ধকার থেকে মুক্ত করুক একুশের আলো' এই শ্লোগান নিয়ে প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজের কুড়িরডোব মাঠে ভাষা শহীদদের স্মরণে প্রজ্জ্বলন করা হয় এক লক্ষ মঙ্গল প্রদীপ ও মোমবাতি। 

বৃহস্পতিবার 'নড়াইল একুশের আলো'র আয়োজনে ভাষা শহীদদের স্মরনে সন্ধ্যায় মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করা হয়। সূর্য়াস্তের সাথে সাথে সন্ধ্যায় শুরু হয় এক লক্ষ মঙ্গল প্রদীপ ও মোমবাতি প্রজ্জ্বলন। শহীদ মিনার, জাতীয় স্মৃতি সৌধ, বাংলা বর্ণমালা, আল্পনাসহ গ্রাম বাংলার নানা ঐতিহ্য তুলে ধরা হয় লাখো প্রদীপ এবং মোমবাতি প্রজ্জ্বলনের মধ্য দিয়ে। একই সাথে ভাষা দিবসের ৬৯তম বার্ষিকী উপলক্ষে ৬৯টি ফানুষ উড়ানো হয়।

সন্ধ্যায় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের শিল্পীদের 'আমার ভায়ের রক্তে রাঙ্গানো একুশে ফেব্রুয়ারি' গান পরিবেশনের সাথে সাথে মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা। 

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন ভাষা সৈনিক রিজিয়া খানম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সোহরাব হোসেন বিশ্বাস, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস, নড়াইল পৌরসভার মেয়র মোঃ জাহাঙ্গীর বিশ্বাস, নড়াইল একুশের আলোর সভাপতি প্রফেসর মুন্সী হাফিজুর রহমান, সদস্য সচিব ও নাট্য ব্যক্তিত্ব কচি খন্দকারসহ নড়াইলের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।