• বুধবার, ডিসেম্বর ১১, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:১৮ রাত

ছাগলকে বাইক চাপা দেওয়ায় সংঘর্ষে আহত ৪

  • প্রকাশিত ০৮:৩২ রাত ফেব্রুয়ারি ২২, ২০১৯
ছাগল
প্রতীকী ছবি : রয়টার্স

এ সময় এক পক্ষের বাড়িতেও ভাঙচুর করা হয়েছে

গুড়ার শাজাহানপুরে একটি ছাগলকে মোটর বাইক চাপা দেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে আহত হয়েছেন চারজন। এ সময় এক পক্ষের বাড়িতেও ভাঙচুর করা হয়েছে। 

শুক্রবার দুপুরে উপজেলার চোপিনগর ইউনিয়নের শাহনগর ডাক্তারপাড়া গ্রামে এ ঘটনায় আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মামলা হয়নি।

আহতরা হলেন- ওই গ্রামের মন্তেজার রহমান (৬০), তার স্ত্রী জোস্না বেগম (৫০) ও ছেলে জুয়েল (২৮) এবং অপর পক্ষের শাহনগর সোনারপাড়া গ্রামের বাসিন্দা সুজন আহমেদ (২৫)।

আহত জুয়েলের স্ত্রী লাভলী বেগম জানান, শুক্রবার দুপুরে তাদের বাড়ির পাশ দিয়ে সুজন দ্রুত গতিতে মোটর বাইক চালিয়ে যাওয়ার সময় তাদের পোষা ছাগলকে চাপা দেন। এ সময় তার স্বামী জুয়েল গ্রামের রাস্তায় ধীরে বাইক চালানোর জন্য পরামর্শ দেন সুজনকে। এতে সে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠলে দু’জনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে জুয়েলের মাথায় আঘাত করলে তিনি গুরুতর আহত হন। 

খবর পেয়ে সুজনের লোকজন এসে তার (লাভলী) শ্বশুর মন্তেজার রহমান, শাশুড়ি জোস্না বেগম এবং স্বামী জুয়েলকে লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারপিট এবং বাড়িঘরে হামলা চালায়। আহতদের বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে

আহত সুজন জানান, তার বাইকের সাথে ছাগলের ধাক্কা লাগেনি। কিন্তু এ নিয়ে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে তার মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করা হয়। তিনিও শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন; তার মাথায় ৬টি সেলাই পড়েছে। 

উল্লেখ্য, সুজন স্থানীয় একটি ক্লাবের সদস্য। ক্লাবটির সভাপতি মনির রহমান জীবনের দাবি, তারা আহত সুজনকে নিয়ে হাসপাতালে গিয়েছিলেন। তারা মন্তেজারের বাড়িতে হামলা চালাননি। তবে রেগে গিয়ে ক্লাবের অন্য ছেলেরা হামলা চালাতে পারে। 

শাজাহানপুর থানার এসআই ওবায়দুল আল মামুন জানান, ছাগলের সঙ্গে মোটর সাইকেলের দুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছিল। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক। বিকাল পর্যন্ত কেউ থানায় অভিযোগ করেননি।