• রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৮ রাত

দুদকের নামে ভুয়া চিঠিতেই চরম আতঙ্কে শিক্ষকরা

  • প্রকাশিত ০৭:০৩ রাত ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১৯
দুদকের নামে ভুয়া চিঠি
বরিশালের বিভিন্ন স্বনামধন্য সরকারি-বেসরকারি স্কুলে কোচিং বাণিজ্য ও অনিয়ম বন্ধে দুদকের নামে পাঠানো ভুয়া চিঠি। ছবি: আনিসুর রহমান স্বপন/ ঢাকা ট্রিবিউন।

প্রধান শিক্ষকদের কাছে দুদকের নামে পাঠানো ভুয়া এইসব চিঠিতে কোচিং বাণিজ্য বন্ধ, ভর্তির সময় বিভিন্ন খাতে অতিরিক্ত অর্থ আদায় বন্ধসহ বিভিন্ন নির্দেশনা দিয়ে পরবর্তী ৩ দিনের মধ্যে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়

বরিশালের বিভিন্ন স্বনামধন্য সরকারি-বেসরকারি স্কুলে কোচিং বাণিজ্য ও অনিয়ম বন্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) নামে ভুয়া চিঠি পাঠানো হয়েছে। তবে, এই ভুয়া চিঠি পেয়েই রীতিমত আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন এইসব বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকারা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জেলার সরকারি বালিকা বিদ্যালয়, সরকারি জেলা স্কুল, বরিশাল উদয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক ডাক যোগে দুদকের নামে দেয়া ওই চিঠি পান। প্রধান শিক্ষকদের কাছে পাঠানো এইসব চিঠিতে কোচিং বাণিজ্য বন্ধ, ভর্তির সময় বিভিন্ন খাতে অতিরিক্ত অর্থ আদায় বন্ধসহ বিভিন্ন নির্দেশনা দিয়ে পরবর্তী ৩ দিনের মধ্যে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়।

এছাড়া দুদক বরিশাল বিভাগীয় পরিচালকের পক্ষে বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালকের (অনুসন্ধান ও তদন্ত) স্বাক্ষরও রয়েছে ওই চিঠিতে। ‘শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের কোচিং বন্ধ করা ও সরকার নির্ধারিত টাকার অধিক বার্ষিক ভর্তি ফি গ্রহন প্রসঙ্গে’ বিষয় হিসেবে উল্লেখ করে দেয়া এই চিঠিগুলোতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি স্মারকও রয়েছে।

এদিকে, চিঠিগুলো পেয়ে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানসহ 'কোচিংবাজ' শিক্ষকদের মধ্যে চরম আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে। তারা দুদকের নামে পাওয়া ওই চিঠি নিয়ে ছুটছেন দুদক কার্যালয়ে। স্মরনাপন্ন হচ্ছেন দুদকের উর্ধতন কর্মকর্তাদের।

তবে বিভাগীয় কার্যালয়ের নামে ইস্যু করা এই চিঠি’র বিষয়ে দুদক কর্তৃপক্ষ অবহিত নয় বলে সংস্থাটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। 

বরিশাল উদয়ন স্কুলের প্রধান শিক্ষক ব্রাদার শ্যামুয়েল সবুজ বালা এ প্রসঙ্গে ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, "দুদকের নামে পাঠানো ভুয়া এই চিঠিগুলো নিয়ে দুদক বরিশাল বিভাগীয় পরিচালক এর সাথে দেখা করেছি। তিনি আমাদের জানিয়েছেন এ ধরনের কোন চিঠি তারা দেননি। তাই ভুয়া চিঠি দিয়ে আমাদের হয়রানির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আমাদের স্কুলের পক্ষ থেকে দুদককে লিখিত আবেদন করেছি"। 

এ প্রসঙ্গে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) বরিশাল বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক মো. জুলফিকার আলী বলেন, "বিভিন্ন স্কুলে দুদকের নাম ব্যবহার করে কারা চিঠি দিয়েছেন তা বলতে পারছি না। এ বিষয়ে তদ্ত করে দেখা হচ্ছে"।