• শনিবার, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৬:১৩ সন্ধ্যা

পদ্মা সেতুতে বসল প্রথম রোড-ওয়ে স্ল্যাব

  • প্রকাশিত ০৩:৫৭ বিকেল মার্চ ১৯, ২০১৯
রোডওয়ে স্ল্যাব পদ্মা সেতু
মঙ্গলবার পদ্মাসেতুতে বসেছে প্রথম রোডওয়ে স্ল্যাব। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

জাজিরা ও মাওয়া প্রান্তে প্রস্তুত করে রাখা আছে ৫০০টি স্ল্যাব। পুরো সেতুতে মোট ২ হাজার ৯৩১ টি স্ল্যাব বসানো হবে।

দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে পদ্মা সেতুর কাজ। সেতুতে গাড়ি চলাচলের জন্য রোড-ওয়ে স্ল্যাব বসানোর কাজও শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার জাজিরা প্রান্তে ৪১ ও ৪২ নম্বর পিলারের মধ্যবর্তী ৭এফ স্প্যানে বসেছে প্রথম স্ল্যাব, যার আইডি নম্বর- ৭এফ-ইউ ৩৩। 

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, দুই মিটার প্রস্থ ও প্রায় ২২ মিটার দৈর্ঘ্যের রোডওয়ে স্ল্যাবগুলো স্প্যানে বসবে। জাজিরা ও মাওয়া প্রান্তে প্রস্তুত করে রাখা আছে ৫০০টি স্ল্যাব। পুরো সেতুতে ২ হাজার ৯৩১ টি স্ল্যাব বসানো হবে। 

মঙ্গলবার সকাল থেকেই দেশি-বিদেশি প্রকৌশলীরা সফলভাবে স্প্যানে একটি স্ল্যাব বসানো হয়। এর আগে ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে পদ্মা সেতুতে রেলওয়ে স্ল্যাব বসানোর কাজ শুরু হয়। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সেতু প্রকল্পের এক সহকারী প্রকৌশলী ঢাকা ট্রিবিউনকে জানান, জাজিরাপ্রান্তে প্রথম রোডওয়ে স্ল্যাব বসানোর কাজ শুরু হয়। সকালে একটি স্ল্যাব কোনও রকম সমস্যা ছাড়াই বসেছে। আগামীকাল (বুধবার) থেকে স্প্যানে বাকি স্ল্যাবগুলো বসানোর কাজ শুরু হবে। প্রতিটি স্প্যানে ৭৪টির মতো রোডওয়ে স্ল্যাব বসানো হবে।

তিনি আরও জানান, মঙ্গলবার বহনকারী ক্রেনটিকে নির্ধারিত স্থানে সুবিধাজনক উচ্চতায় রেখে স্ল্যাবটি বসানো হয়। 

জানা যায়, ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের এ সেতুতে ৪২টি পিলারের ওপর বসবে ৪১টি স্প্যান। পদ্মা বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো। জাজিরা প্রান্তে সেতুর ৩৫, ৩৬, ৩৭, ৩৮, ৩৯, ৪০, ৪১, ৪২ পিলারে সাতটি স্প্যান বসানো হয়েছে ও মাওয়া প্রান্তে ৫ ও ৬ নম্বর পিলারে একটি অস্থায়ী স্প্যান রাখা হয়েছে।