• সোমবার, জানুয়ারী ২০, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৪৫ রাত

বাস কাউন্টারে গণধর্ষণ: সেই স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতাকে বহিষ্কার

  • প্রকাশিত ০৪:২০ বিকেল মার্চ ২৬, ২০১৯
লালমণিরহাট
লালমণিরহাটে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার করেছে স্বেচ্ছাসেবকলীগ। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

পাটগ্রাম উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত এক পত্রে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

লালমণিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী স্থলবন্দর এলাকায় যশোদা বাস কাউন্টারে এক নারীকে টানা চার দিন আটকে রেখে গণধর্ষণের ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার এজাহারভুক্ত আসামি ও বুড়িমারী ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলাম (৩৫)-কে বহিষ্কার করেছে সংগঠনটি।

পাটগ্রাম উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি নাজমুল হুদা রাসেল ও সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন লিপু স্বাক্ষরিত এক পত্রে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

রেজাউলকে বহিষ্কারের সত্যতা নিশ্চিত করে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন লিপু মঙ্গলবার ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, ব্যক্তির অপরাধকে আলাদা চোখেই দেখা উচিত। একে রাজনীতির সঙ্গে মেলানো ঠিক নয়। রেজাউলের অপকর্মের বিষয়টি জানার পরই আমরা আলোচনা করে গত ২৩ মার্চ তাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। তাই সেদিনই আমরা বহিষ্কারপত্রে স্বাক্ষর করেছি।

উল্লেখ্য, বিনা পাসপোর্টে ভারতে যাওয়ার ব্যবস্থা করে দেওয়ার কথা বলে শেরপুর জেলার নকলা থেকে আসা এক নারীকে বুড়িমারী স্থলবন্দর এলাকার যশোদা পরিবহনের বাস কাউন্টারে আটকে রেখে ধর্ষণ করা হয়। বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ওই কাউন্টার থেকে হাতেনাতে রেজাউল ইসলামকে আটক করে নির্যাতিত নারীকে উদ্ধার করে পাটগ্রাম থানা পুলিশ। 

পরিদন (শুক্রবার) অভিযান চালিয়ে হাতীবান্ধা উপজেলার আনন্দ আবাসিক হোটেল থেকে এজাহারভুক্ত অন্য দুই আসামি নজরুল ইসলাম নজু ও নুরুন নবীকে গ্রেফতার করে পুলিশ।