• সোমবার, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:২১ রাত

আগুন থেকে বাঁচতে তার বেয়ে নামার চেষ্টা, সাহায্যের আকুতি

  • প্রকাশিত ০৩:৪৯ বিকেল মার্চ ২৮, ২০১৯
বনানী আগুন
বনানীর এফ আর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডে ভবনে আটকে পড়া অনেকে তার বেয়ে নামার চেষ্টা করেন। ছবি: ফোকাস বাংলা

আটকা পড়া অনেকেই ভবনের ছাদে আশ্রয় নিয়েছেন। ক্রেন লেডারের (যন্ত্রচালিত মই) সাহায্যে তাদের সেখান থেকে উদ্ধারের চেষ্টা করার চেষ্টা হচ্ছে।

রাজধানীর বনানীর ১৭ নম্বর রোডের এফ আর টাওয়ারে আগুন লাগা ভবনে আটকা পড়েছেন অনেকেই। নবম তলায় আগুন শুরু হওয়ার পর অনেকে আতঙ্কে ওপরের তলাগুলোয় আশ্রয় নেন। এরই মধ্যে কেউ কেউ ছাদে উঠে পাশের ভবনে গিয়ে নামার চেষ্টা করেছেন। তারের সাহায্যেও নামার চেষ্টা করতে দেখা গেছে কয়েকজনকে। তবে ভবনটিরে ভেতরে যারা আটকা পড়েছেন তারা ভাঙা কাঁচের ভেতর দিয়ে হাত বের করে সাহায্য চাচ্ছেন।

সোশ্যাল মিডিয়া এবং বিভিন্ন টেলিভিশনের সরাসরি ভিডিওতে দেখা গেছে, বাঁচার আকুতি জানিয়ে তারা ইমার্জেন্সি সিঁড়ি পাঠানোর ব্যবস্থা করতে বলছেন। অগ্নিকাণ্ডে সৃষ্ট ধোঁয়ার তীব্রতা বেশি থাকায় শ্বাস-প্রশ্বাসে সমস্যা হচ্ছে বলে জানান তারা। 

ফেসবুকের একটি লাইভ ভিডিওতে জানালা দিয়ে নিচের রাস্তা দেখিয়ে স্বর্ণা নামে আটকে পড়া একজন বলছেন, ‘আমরা ভেতরে আটকা।’

উদ্ধারকারীরা জানান, ভবনের আট তলা থেকে একটি মেয়ে তার ধরে ধরে নামার চেষ্টা করলে হাত ফসকে মাটিতে পড়ে যায়। এর পর পর আরও দুইজন পুরুষ পড়ে যায়। আমি নিজে এই তিনজনকে সেখান থেকে উদ্ধার করেছি। মেয়েটার পুরো শরীরে কাঁচ লেগে ছিল।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা ৫৫ মিনিটে ২১ তলা ভবনটির ৯ তলায় এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ফায়ার সার্ভিসের ১৭টি ইউনিট আগুন নেভানোর কাজ করছে। সেখানে আটকা পড়া অনেকেই ভবনের ছাদে আশ্রয় নিয়েছেন। ক্রেন লেডারের (যন্ত্রচালিত মই) সাহায্যে তাদের সেখান থেকে উদ্ধারের চেষ্টা করার চেষ্টা হচ্ছে। আগুন নেভানোর সুবিধার জন্য আশেপাশের রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আগুন নেভাতে ফায়ার সার্ভিসের সঙ্গে কাজ করছে নৌবাহিনীর ফায়ার ইউনিট ও বিমানবাহিনীর হেলিকপ্টার।