• রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৮ রাত

বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীনরা আশঙ্কামুক্ত

  • প্রকাশিত ০৪:৩৮ বিকেল মার্চ ২৯, ২০১৯
বনানী আগুন
বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) এফ আর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় মৃতের সংখ্যা ২৬ এ পৌঁছেছে। ফোকাস বাংলা

এফ আর টাওয়ারের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আহত হয়ে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজসহ রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন অন্তত ৫৯ জন

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের প্রধান সমন্বয়ক ডা. সামন্তলাল সেন জানিয়েছেন, বনানীর এফ আর টাওয়ারের আগুনে দগ্ধরা যারা বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন আছেন তারা আশঙ্কামুক্ত। 

শুক্রবার (২৯ মার্চ) তিনি বলেন, "বার্ন ইউনিটের কেউই এখন আশঙ্কাজনক অবস্থায় নেই। রেজাউল নামের একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক, তাকে হাসপাতালের মূল ভবনের আইসিইউতে রাখা হয়েছে।" 

ডা. সামন্তলাল সেন বলেন, আমাদের এখানে মোট সাতজন রোগীকে চিকিৎসার জন্য আনা হয়েছিল। আবুল হোসেন ও রেজাউর রহমান নামে দু'জনকে আজ সকালে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। রেজওয়ান আহমেদ নামে আরেকজনের অবস্থা শঙ্কটাপন্ন, তাকে হাসপাতালের আইসিইউতে রাখা হয়েছে। তার শরীরের ১০ থেকে ১২ শতাংশ পোড়া; দুই পায়ের উরু ও দুই হাতের হাড় ভাঙা এবং পিঠের কিছুটা অংশে মাংস নেই। রাতে সেটা অপারেশন করা হয়েছে। এখন বিশেষভাবে চিকিৎসাধীন আছে। এছাড়া বাকি যারা আছেন তাদের সবাই ঝুকিমুক্ত। এই মুহুর্তে বার্ন ইউনিটে সর্বমোট চারজন আছেন। তারা হলেন— অনুপম দেবনাথ, আব্দুস সবুর খান, সাব্বির আলী মৃধা ও তৌকির হোসেন। এর মধ্যে অনুপম দেবনাথকে কুর্মিটোলা হাসপাতাল থেকে আনা হয়। এই চারজনকে আমরা বার্ন ইউনিটের দোতালায় আলাদা কক্ষে নিয়ে স্পেশাল চিকিৎসা দিচ্ছি। এছাড়া জরুরি বিভাগে ভর্তি আছেন ফায়ার কর্মকর্তা উদ্দীপন ভক্ত, হাবিবুল্লাহ খান ও নিলীমা।

বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক বলেন, "আব্দুল্লাহ আল ফারুক তমাল নামে একজনকে মৃত অবস্থায় আনা হয়। তার শরীরের ৯৫ শতাংশ পোড়া ছিল।"

তিনি বলেন, আজ সকালে সরকারের নির্দেশে কুর্মিটোলা হাসপাতালে রোগীগুলোকে দেখতে যাই। সেখানে ১১ জন রোগী ভর্তি আছে। তাদের অবস্থা ভালো। তারা কেউ বার্ন পেশেন্ট না।

এই চিকিৎসক বলেন, "এ ধরনের আগুনের ঘটনা দুঃখজনক। এগুলো প্রতিরোধে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া দরকার।"

বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) ২৩ তলাবিশিষ্ট এফ আর টাওয়ারের ওই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ২৫ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এদের মধ্যে ২৪ জনকে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আহত হয়ে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজসহ রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন অন্তত ৫৯ জন।