• শনিবার, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:১২ রাত

চাকরি সরকারিকরণের জন্য প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি চান পলিটেকনিক শিক্ষকরা

  • প্রকাশিত ০৬:০৪ সন্ধ্যা মার্চ ২৯, ২০১৯
শিক্ষক
ছবি: সৌজন্য

সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট, মনোটেকনিক, গ্রাফিকসআর্টস, বাংলাদেশ সার্ভে ইনস্টিটিউট ও ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলোজিতে শিক্ষক সংকট প্রকট।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদৃষ্টি কামনা করে চাকরি সরকারিকরণের দাবি জানিয়েছেন অনিশ্চয়তায় থাকা সরকারি পলিটেকনিকের প্রায় ৯'শ শিক্ষক। 

“কারিগরি শিক্ষার অগ্রযাত্রায় ‘স্টেপ’ প্রকল্পে নিয়োজিত শিক্ষকদের ভূমিকা” শীর্ষক আলোচনা সভায় শুক্রবার এই দাবি জানায় বাংলাদেশ পলিটেকনিক টিচার্স ফেডারেশন (বিপিটিএফ)।

জানা যায়, সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট, মনোটেকনিক, গ্রাফিকসআর্টস, বাংলাদেশ সার্ভে ইনস্টিটিউট ও ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলোজিতে শিক্ষক সংকট প্রকট। তাই কারিগরি শিক্ষার সম্প্রসারণের লক্ষ্যে স্কিলস এ্যান্ড ট্রেনিং এনহ্যান্সমেন্ট প্রজেক্ট (স্টেপ)-এর আওতায় থাকা শিক্ষকদের চাকরি রাজস্বখাতে আত্মীকরণের সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।

আইডিইবির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সভাপতি একেএমএ হামিদ বলেন, আমাদের উন্নয়ন পরিকল্পনায় সপ্তম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায় বারবার বলা হয়েছে দক্ষ কর্মশক্তির অভাবের কথা। তা সত্বেও ৮৭৬ জন দক্ষ কর্মীকে চাকরিচ্যুত করা হচ্ছে। এর প্রতিবাদে কারিগরি শিক্ষকদের এক প্লাটফর্মে আসতে হবে। এখানে কোনও বিভেদ করা চলবে না।

এ সময় উপস্থিত স্টেপ প্রকল্পের আওতায় থাকা শিক্ষকরা জানান, দুই বছরের প্রকল্পের মেয়াদ দুই ধাপে বৃদ্ধি করে ৭ বছরে উন্নীত করা হয়। কিন্তু হঠাৎ করেই প্রকল্পটি বন্ধ করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এখন এই শিক্ষক ও তাদের পরিবারের ভবিষ্যত অনিশ্চিত।

এসব সমস্যার কথা উল্লেখ করে এই শিক্ষকরা তাদের চাকরি সরকারিকরণের দাবি জানান।