• শনিবার, জানুয়ারী ১৮, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৪৫ সকাল

মন্ত্রী : ১৫ দিনের মধ্যে চিহ্নিত হবে সব অপরিকল্পিত ভবন

  • প্রকাশিত ১১:২৯ সকাল মার্চ ৩০, ২০১৯
ঢাকা
ছবি- সৈয়দ জাকির হোসেন/ঢাকা ট্রিবিউন

'১৫ দিনের মধ্যে চিহ্নিত করব কোনো ভবন পরিকল্পনা বা নিয়মের বাইরে হয়েছে কিনা।'

গুলশান, বনানীসহ রাজধানীর কোনো স্থানে অপরিকল্পিত ভবন থাকলে তা ১৫ দিনের মধ্যে চিহ্নিত করা হবে বলে জানিয়েছেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ. ম. রেজাউল করিম। 

আজ শনিবার ভোরে গুলশান-১ নম্বরের ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) পাশে কাঁচাবাজারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার পর  ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। 

ফায়ার সার্ভিসের জরিপ অনুযায়ী ঢাকার বেশির ভাগ ভবনে অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা নেই এ বিষয়ে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন আমরা শুধু গুলশান-বনানীসহ ঢাকা শহরের যে কোনো স্থানে যদি অপরিকল্পিতভাবে ইমারত নির্মিত হয়ে থাকে, অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা না থেকে থাকে আগামী রোববার থেকে রাজউকের পরিদর্শন শুরু করবে।' 

'১৫ দিনের মধ্যে চিহ্নিত করব কোনো ভবন পরিকল্পনা বা নিয়মের বাইরে হয়েছে কিনা। প্রয়োজনে সিলগালা করে দেব, অপসারণ করব অথবা উপযোগী অবস্থা সৃষ্টি না হওয়া পর্যন্ত সব রকম কার্যক্রম স্থগিত রাখবো। এই ঘটনার সাথে মালিক হোক, ডেভেলপার হোক এমনকি রাজউকের কোনো লোক জড়িত থাকলে কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি তাদের হতে হবে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।'

অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের সরকারের পক্ষ থেকে কোনো সহায়তা করা হবে কিনা জানতে চাইলে রেজাউল করিম বলেন, 'সরকারের পক্ষ থেকে সম্ভাব্য সব ধরনের সহায়তা করা হবে।কোনো দুর্ঘটনাকে আমরা ছোট করে দেখতে চাই না। আমরা তা খতিয়ে দেখে গভীরে যেতে চাই। এখানে যারা ব্যবসায়ী, তারা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া মানে দেশ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া, আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া। আমরা তাদের প্রতি সংবেদনশীল।'

'এখানে কাঁচা বাজারটি পরিকল্পিত ভবন নয়। এখানে ব্যবসায়ীরা নিজ উদ্যোগে স্থাপনা নির্মাণ করে অন্তর্বর্তীকালীন ব্যবস্থা করেছে। এখানে বিদ্যুৎ সংযোগসহ অন্যান্য ব্যবস্থা সে অনুযায়ী না।'

মন্ত্রী বলেন, 'এটা কিন্তু দীর্ঘদিনের জঞ্জাল। আমরা চেষ্টা করছি পূর্বাচল-ঝিলমিলসহ নতুন যে শহরগুলো হচ্ছে সেখানে পরিকল্পনার বাইরে কোনো স্থাপনা হতে দিচ্ছি না। এখানে স্থানীয় কিছু আছে আপনারা জানেন আমরা চেষ্টা করছি তা দূর করে পরিকল্পিতভাবে সমন্বয় করার ।'