• রবিবার, মে ২৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:২৪ সকাল

বনানী অগ্নিকাণ্ড: আটতলার শর্টসার্কিট থেকেই আগুনের সূত্রপাত

  • প্রকাশিত ০৫:২৩ সন্ধ্যা মার্চ ৩১, ২০১৯
বনানী আগুন
বনানীর এফ আর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডে ভবনে আটকে পড়া অনেকে তার বেয়ে নামার চেষ্টা করেন। ছবি: ফোকাস বাংলা

‘ভবনটি নির্মাণে বিল্ডিং কোড মানা হয়নি এছাড়াও ইমারজেন্সি এক্সিট অপ্রশস্থ থাকায় ভবনে অবস্থানরত মানুষ দ্রুত নামতে পারেনি এবং সেন্ট্রাল এলার্ম সিস্টেমও কাজ করেনি’

বনানীর এফ আর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত ৮ম তলা থেকে বলে ধারণা ব্যক্ত করেছে ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটি।

রবিবার (৩১ মার্চ) সকাল সাড়ে ১০ টায় মন্ত্রণালয়ের ৯ সদস্যের তদন্ত কমিটি দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর ১২টায় পার্শ্ববর্তী সফুরা টাওয়ারে বনানী থানার অস্থায়ী কন্ট্রোলরুমে ব্রিফিংকালে কমিটির প্রধান মন্ত্রণালয়টির অতিরিক্ত সচিব ফয়জুর রহমান এ কথা জানান।

ঘটনাস্থলে তদন্ত কমিটি তদন্তকালে বিভিন্ন ব্যক্তির বক্তব্য শোনেন।

বিফ্রিংয়ে তিনি জানান, ২৩ তলা ভবনের ৮ম তলায় বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে ধারণা করা হচ্ছে।

কমিটি প্রধান বলেন, “আমরা পুরো ভবন ঘুরে দেখেছি যে এটি নির্মাণে বিল্ডিং কোড মানা হয়নি। আগুন লাগার পর ভবনটির ইমারজেন্সি এক্সিট অপ্রশস্থ থাকায় ভবনে অবস্থানরত মানুষ দ্রুত নামতে পারেনি এবং সেন্ট্রাল এলার্ম সিস্টেমও কাজ করেনি।”

কমিটি আগামী ৩ এপ্রিলের মধ্যে চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দিবে বলে জানানো হয়। এ সময় তদন্ত কমিটির অন্য সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন।

গত ২৮ মার্চ দুপুরে বনানীর ২৩ তলা ওই ভবনটিতে আগুন লাগে। আগুনের ঘটনায় আটকা পড়েন অনেকে। আগুন নিয়ন্ত্রণ ও আটকেপড়াদের উদ্ধারে কাজ করেন ফায়ার সার্ভিস, সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর সদস্যরা। পুলিশের পক্ষ থেকে ২৫ জন এবং দমকল বিভাগের পক্ষ থেকে ১৯ জনের লাশ উদ্ধারের কথা গণমাধ্যমে জানানো হয়। পরে ২৫ জনের লাশের তথ্য নিশ্চিত করে তালিকা প্রকাশ করা হয়।

গতকাল সিএমএইচে চিকিৎসাধীন আরো একজনের মৃত্যু হয়। এ নিয়ে অগ্নিকান্ডে মৃতের সংখ্যা দাড়ায় ২৬ জন।