• শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫২ রাত

পঞ্চগড়ে স্ত্রীসহ ৩ কন্যাকে কুপিয়ে স্বামী পলাতক

  • প্রকাশিত ০১:২৭ দুপুর এপ্রিল ১, ২০১৯
কুপিয়ে হত্যা
প্রতীকী ছবি

এসময় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানোয় নিহত হয় ৬ মাসের কন্যা সন্তান

 পঞ্চগড় জেলার সদর উপজেলার চাকলাহাট ইউনিয়নের পূর্বজয়ধরভাঙ্গা এলাকায় নাজিমুল ইসলাম (৪০) নামে এক ব্যক্তি স্ত্রীসহ ৩ কন্যা সন্তানকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করেছে।

সোমবার (১ এপ্রিল) সকালে চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটেছে। এতে রত্না নামে ৬ মাসের এক কন্যা সন্তান নিহত হয়েছে। এদিকে, ঘটনার পর পরই অভিযুক্ত নাজিমুল পালিয়ে গেছে।

গুরুতর আহতদের প্রথমে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের ৩ জনকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

পুলিশ, হাসপাতাল ও স্থানীয়রা জানায়, পারিবারিক কলহের জেরে স্বামী নাজিমুল ইসলামের (পাথর শ্রমিক) সঙ্গে স্ত্রী রশিদা বেগমেরবিবাদের কারণে স্ত্রীসহ (৩০), তিনকন্যা নাজিরা বেগম (১০), রিয়া মনিকে (৫) ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। এরপর ছোট মেয়ে রত্নাকে (৬ মাস) কুপিয়ে ছুঁড়ে ফেলে দেয়ায় ঘটনাস্থলে মারা যায় শিশুটি।

বিষয়টি টের পেয়ে স্থানীয়রা সকলকে উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় চিকিৎসকরা তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করে।আহত ৩ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের কনসালটেন্ট ডা. মনসুর আলম জানান, “সকালে ৪ জন রোগী আহতাবস্থায় জরুরি বিভাগে আসে। ৩ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক, তাদের রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।”

পঞ্চগড় থানার এসআই আব্দুল জব্বার এ ঘটনা নিশ্চিত করে বলেন, “স্বামী নাজিমুল স্ত্রীসহ ৩ মেয়েকে কুপিয়েছে। ঘটনার কারণ অনুসন্ধান চলছে। স্বামী নাজিমুলকে আটকের চেষ্টা চলছে।”