• শনিবার, জুলাই ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৫২ সকাল

নুসরাত হত্যায় ব্যবহৃত বোরকা উদ্ধার

  • প্রকাশিত ০৩:৩২ বিকেল এপ্রিল ২০, ২০১৯
নুসরাত হত্যায় ব্যবহৃত বোরকা (বামে),  কামরুন নাহার মনিকে নিয়ে পরিদর্শনে বের হয় পুলিশ। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন
নুসরাত হত্যায় ব্যবহৃত বোরকা (বামে), কামরুন নাহার মনিকে নিয়ে পরিদর্শনে বের হয় পুলিশ। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন

শুক্রবার কামরুন নাহার মনিকে নিয়ে পিআইবি সদস্যরা সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা ভবনের ছাদ ও বোরকার দোকান পরিদর্শন করেন

নুসরাত জাহান রাফিকে কেরোসিন ঢেলে হত্যার ঘটনায় আসামিদের পরিহিত বোরকা উদ্ধার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। মামলার আসামি জোবায়েরের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির ভিত্তিতে বোরকাগুলো উদ্ধার করা হয়।

আজ শনিবার সোনাগাজীর ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রার অদূরে কাশমির বাজার সংলগ্ন ডাঙ্গি খাল থেকে বোরকাগুলো উদ্ধার করে পিবিআই।

বিষয়টি নিশ্চিত করে পিবিআই-এর পরিদর্শক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো. শাহ আলম জানান, আসামিদের পরিহিত উদ্ধার হওয়া বোরকাগুলো এ হত্যা মামলার অন্যতম আলামত।

এর আগে হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার নুর উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন শামীম আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে জানা যায়, বোরকা পরে কিলিং মিশনে পাঁচজন হত্যাকাণ্ডে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

গতকাল শুক্রবার কামরুন নাহার মনিকে নিয়ে পিআইবি সদস্যরা সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা ভবনের ছাদ ও বোরকার দোকান পরিদর্শন করেন।

শুক্রবার দুপুর ১২টায় পিবিআই কর্মকর্তারা মনিকে নিয়ে প্রথমে উপজেলা সদরের জিরো পয়েন্ট এলাকায় মানিক মিঞা প্লাজার একটি দোকানে যান। যেখান থেকে নুসরাতের গায়ে আগুন দেওয়ার সময় আসামিদের পরে থাকা বোরকা কেনা হয়েছিল। পরে তারা সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার ছাদে যান। যেখানে নুসরাতের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেওয়া হয়েছিল।

গত ১৬ এপ্রিল দুপুরে মনিকে সোনাগাজী ইসলামিয়া মাদ্রাসার সামনে থেকে আটক করা হয়। পরে গত ১৭ এপ্রিল দুপুরে ফেনীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শরাফউদ্দিন আহমেদ মনিকে রিমান্ডের আদেশ দেন।