• রবিবার, জুলাই ২১, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৩:৩৭ বিকেল

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুন, মসজিদসহ ৩০টি ঘর ভস্মীভূত

  • প্রকাশিত ০২:৩৯ দুপুর এপ্রিল ২৪, ২০১৯
রোহিঙ্গা ক্যাম্প আগুন
বুধবার কুতুপালংয়ের একটি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

ক্যাম্পে ব্যবহৃত গ্যাস সিলিন্ডার থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

কক্সবাজারের উখিয়ায় কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবিরের একটি ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এসময় একটি মসজিদসহ ৩০টি ঝুঁপড়ি ঘর পুড়ে গেছে। আগুন নেভাতে গিয়ে আহত আহত হয়েছে দুই রোহিঙ্গা শরণার্থী। আহতদের স্থানীয় রেড ক্রিসেন্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

বুধবার (২৪ এপ্রিল) দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবিরের ক্যাম্প-৫ এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। দুপুর ১টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

তবে এ অগ্নিকাণ্ডে বড় কোনও ক্ষয়-ক্ষতি কিংবা হতাহতের ঘটনা ঘটেনি বলে ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা গেছে।

ক্যাম্পের নেতা মো. আব্দুর রহিম জানান, বুধবার দুপুরে কুতুপালং ৫ নম্বর ক্যাম্পের এইচ ব্লকে হঠাৎ আগুনের কুণ্ডলী দেখা গেলে রোহিঙ্গারা আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন। পরে ক্যাম্প ইনচার্জের মাধ্যমে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে তারা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে উখিয়া ফায়ার স্টেশনের ইনচার্জ ইমদাদুল হক ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে উখিয়া ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এতে বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। আগুন নেভাতে গিয়ে এক বৃদ্ধাসহ দুই রোহিঙ্গা আহত হয়েছে। 

তিনি আরও বলেন, ক্যাম্পে ব্যবহৃত গ্যাস সিলিন্ডার থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। আগুনে একটি মসজিদ ও ৩০টি ঝুঁপড়ি ঘর সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে।

এ বিষয়ে উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী জানিয়েছেন, খবর পাওয়ার পর পরই উখিয়া ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিয়ে ঘটনাস্থলে পাঠিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণের জন্য বলেছি। অল্পের জন্য বড় দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেয়েছে রোহিঙ্গারা। ক্যাম্পে রান্নার কাজে ব্যবহৃত গ্যাস সিলিন্ডারের বিষয়ে একাধিকবার রোহিঙ্গাদের সতর্ক করার পরেও আগুন লাগার বিষয়টি দু:খজনক।