• বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ০২, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৬:০৩ সন্ধ্যা

নুসরাত হত্যা: অধ্যক্ষ সিরাজ ও প্রভাষক আফসারের এমপিও স্থগিত

  • প্রকাশিত ০৭:৩৮ রাত এপ্রিল ২৮, ২০১৯
নুসরাত জাহান রাফি
নুসরাত জাহান রাফি। ছবি: সংগৃহীত

রবিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী এ সংক্রান্ত এক নথি অনুমোদন করেন

ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফি হত্যার ঘটনায় অধ্যক্ষ সিরাজ উদ-দৌলা ও প্রভাষক আফসার উদ্দীনের এমপিও স্থগিত করা হয়েছে। রবিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী এ সংক্রান্ত এক নথি অনুমোদন করেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, "নুসরাত জাহান রাফিকে শ্লীলতাহানী ও আগুনে পুড়িয়ে হত্যা মামলায় অভিযুক্ত সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ এস এম সিরাজ উদ-দৌলার (ইনডেক্স নং ৩০৪১১১) এমপিও স্থগিত করা হয়েছে। এছাড়া নুসরাতকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যার সাথে জড়িত মাদরাসার ইংরেজী বিষয়ের প্রভাষক আফসার উদ্দীনের (ইনডেক্স নং ২০৩০৫০৮) এমপিও স্থগিত করা হয়েছে"।

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (মাদরাসা) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮ এর অনুচ্ছেদ -১৮ এর উপানুচ্ছেদ ১৮.১, ১৮.২ এর আলোকে তাদের এমপিও স্থগিত করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ৬ এপ্রিল সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসায় আলিম পরীক্ষার কেন্দ্রে গেলে মাদরাসার ছাদে ডেকে নিয়ে রাফির গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে পালিয়ে যায় মুখোশধারী দুর্বৃত্তরা।

এর আগে মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ-দৌলার বিরুদ্ধে করা শ্লীলতাহানির মামলা প্রত্যাহারের জন্য রাফিকে চাপ দেয় তারা। তবে তাতে কাজ না হওয়ায় রাফিকে অগ্নিদগ্ধ করে তারা। আগুনে ঝলসে যাওয়া রাফিকে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে এবং পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১০ এপ্রিল রাতে নুসরাত জাহান রাফি মারা যায়।

নুসরাত হত্যা মামলায় অধ্যক্ষ সিরাজ উদদৌলা এবং প্রভাষক আফসার উদ্দিন বর্তমানে কারাগারে আছেন।