• সোমবার, আগস্ট ২৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৪০ সকাল

চট্টগ্রামে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ধর্ষণ মামলার আসামি নিহত

  • প্রকাশিত ১১:১৮ সকাল এপ্রিল ২৯, ২০১৯
বন্দুকযুদ্ধ

নিজের ছাত্রীকে হাত-পা বেধে ধর্ষণ করার অভিযোগ ছিল নিহত ব্যক্তির বিরুদ্ধে

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার উত্তর আমিাবাদ এলাকায় সোমবার ভোর সাড়ে ৪টায় কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ধর্ষণ মামলার আসামি এক কোচিং সেন্টারের শিক্ষক নিহত হয়েছেন। র‍্যাব-৭ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মাসকুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহত সাইফুল ইসলাম (২৬) স্থানীয় একটি কোচিং সেন্টারের মালিক। তিনি উত্তর আমিরাবাদ পূর্ব মুহুরি পাড়ার আব্দুস সোবহানের ছেলে।

র‍্যাব কর্মকর্তা মাসকুর রহমান জানান, ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামি সাইফুল ইসলাম উত্তর আমিরাবাদ এলাকায় অবস্থান করছে জানতে পেরে তাকে ধরতে ভোরে অভিযান চালায় র‌্যাব। উপস্থিতি টের পেয়ে সাইফুল তার সহযোগীদের নিয়ে র‌্যাবের ওপর গুলি চালায়। আত্মরক্ষার্থে র‌্যাব পাল্টা গুলি চালালে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে সাইফুলের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করা হয়।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, গত ১২ এপ্রিল উপজেলার উত্তর আমিরাবাদ এলাকায় একটি কোচিং সেন্টারের শিক্ষক হাত-পা বেঁধে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১৫) ধর্ষণ করে। ঘটনাটি জানার পর পুলিশ কোচিং সেন্টারটি বন্ধ করে দেয়। ঘটনার তিনদিন পর গত ১৫ এপ্রিল লোহাগাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রীর মা।

মামলা সূত্রে আরো জানা গেছে, সাইফুল ইসলাম উত্তর আমিরাবাদ এলাকায় সৃজনশীল নামে একটি কোচিং সেন্টারের মালিক। কোচিং সেন্টারটিতে ওই ছাত্রীসহ একই পরিবারের ৪ শিক্ষার্থী পড়তো। ঘটনার দিন একই এলাকায় বসবাসের সূত্রে ছাত্রীর মা বাসায় না থাকার সুযোগে শিক্ষক সাইফুল বাসায় গিয়ে ওই ছাত্রীর হাত-পা বেঁধে তাকে ধর্ষণ করে। এসময় ছাত্রীর চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে সাইফুল পালিয়ে যায়।

পরে গুরুতর আহত ছাত্রীকে উদ্ধার করে লোহাগাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।