• শুক্রবার, ডিসেম্বর ০৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:১৪ সকাল

'গোপন খবরে' ভারতের ৪ নাগরিক গ্রেপ্তার, মিলল পিস্তল-গুলি-ওয়াকিটকি

  • প্রকাশিত ০৭:১১ রাত মে ১১, ২০১৯
ব্রাহ্মণবাড়িয়া কসবা উপজেলা থেকে শনিবার 'গোপন সংবাদের' ভিত্তিতে ভারতের চার নাগরিকসহ দুই বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন
ব্রাহ্মণবাড়িয়া কসবা উপজেলা থেকে শনিবার 'গোপন সংবাদের' ভিত্তিতে ভারতের চার নাগরিকসহ দুই বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন

গত কয়েকদিন ধরে কুটি বাজারের 'মা প্লাজা'র 'আলিফ হোটেলে'র ওপরে তিনতলার কক্ষে একসঙ্গে ছয়জন অবস্থান করছিলেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া কসবা উপজেলা থেকে 'গোপন সংবাদের' ভিত্তিতে ভারতের চার নাগরিকসহ দুই বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে বিদেশি পিস্তল, পাইপগান, গুলি, ওয়াকিটকি ও পেট্রোল উদ্ধার করা হয়েছে। 

আজ শনিবার দুপুরে উপজেলার কুটি বাজার এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। 

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন, ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের বিশালঘরের নেতাজি নগরের শ্যামল দেবনাথের ছেলে স্বর্ণজিৎ দেবনাথ (২৩), উত্তর ত্রিপুরার ধর্মনগরের রতি রঞ্জন চৌধুরীর ছেলে নির্মলেন্দু চৌধুরী (৩২) বাদারঘাটের সুনীল সরকারের ছেলে শংকর সরকার (৩১) ও আমতলীর রাজনগরের অবনী দাসের ছেলে বিমল দাস (৩৩)। 

বাংলাদেশি দুজন হলেন-কসবা উপজেলার মান্দারপুর গ্রামের আবদুল মান্নানের ছেলে হাসিবুল হাসান অনিক(১৯) ও আখাউড়া উপজেলার বনগজ গ্রামের আহমদ হোসেনের ছেলে আমজাদ হোসেন শাওন (২২)।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, চারটি গুলি, দুটি পাইপগান, দুটি কার্তুজ, দুটি ওয়াকিটকি,  পাঁচ লিটার পেট্রোল, চার্জার, বুট জুতা, রেইনকোট ও হ্যান্ড গ্লাভসসহ বেশ কিছু জিনিস উদ্ধার করা হয়।

কসবা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আবদুল করিম জানান, গত কয়েকদিন ধরে কুটি বাজারের 'মা প্লাজা'র 'আলিফ হোটেলে'র ওপরে তিনতলার কক্ষে একসঙ্গে ছয়জন অবস্থান করছিলেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায় ওই কক্ষে অবস্থাকারীদের মধ্যে অস্ত্রসহ ভারতীয় নাগরিক রয়েছেন। পরে পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। 

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা বড় ধরনের অপরাধ কর্মকাণ্ড ঘটাতে জড়ো হয়েছিলো কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধে কসবা থানায় দুটি মামলা করার প্রস্তুতি চলছে।