• সোমবার, জুন ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৯ রাত

শিক্ষা উপমন্ত্রী: আগামী বছর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়েও সমন্বিত ভর্তি

  • প্রকাশিত ০৭:৫১ রাত মে ১২, ২০১৯
শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।
রবিবার ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণির ভর্তি কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। ছবি: ইউএনবি

'আমরা আশাবাদী, আগামী বছর থেকেই এ কার্যক্রম শুরু করা যাবে'

আগামী বছর থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়েও সমন্বিত পদ্ধতিতে ভর্তি কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

রবিবার ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণির ভর্তি কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিক্ষা উপমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

নওফেল বলেন, "বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে সমন্বিত ভর্তি প্রক্রিয়া সবার দীর্ঘ দিনের দাবি। আমরা এটি নিয়ে কাজ করেছি। এরই মধ্যে এ কার্যক্রমে অনেক অগ্রগতি হয়েছে। আমরা আশাবাদী, আগামী বছর থেকেই এ কার্যক্রম শুরু করা যাবে"।

মহিবুল হাসান বলেন, "একাদশ শ্রেণির ভর্তি কার্যক্রমের মতোই বিশ্ববিদ্যালয়েও সমন্বিত গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি কার্যক্রম চালু করা হবে। এতে করে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের নির্মম কষ্ট ও ভোগান্তি লাঘব হবে। পাশাপাশি সমন্বিত ভর্তি কার্যক্রম বাস্তবায়ন হলে এই প্রক্রিয়ায় আরও স্বচ্ছতা আসবে"।

উপমন্ত্রী আরো বলেন, "অনলাইনে সমন্বিত ভর্তি প্রক্রিয়া বাস্তবায়নে এখনো অনেকেই বাধা দিচ্ছেন বা প্রতিবন্ধকতা তৈরির চেষ্টা করছেন। তাদের সতর্ক করে দেওয়া হচ্ছে। কোনো প্রতিবন্ধকতাকে গুরুত্ব দেওয়া হবে না, বরং তাদের কঠোর হাতে দমন করা হবে"।

আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে সমন্বিত এ ভর্তি কার্যক্রম চালুর পরিকল্পনা রয়েছে উল্লেখ করে শিক্ষা উপমন্ত্রী বলেন, "এরই মধ্যে আমরা ইউজিসির (বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন) সঙ্গে এ বিষয়ে বৈঠক করেছি। তারা একটি প্রতিবেদন তৈরি করেছে। সেখানে এই বিষয়টি পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে তুলে ধরা হয়েছে। আমরা সেই প্রতিবেদন পাওয়ার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সঙ্গে বৈঠক করব। কিভাবে এটি বাস্তবায়ন করা যায়, তা নিয়ে আলাপ-আলোচনা করব। তারপরই বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পদ্ধতি চালু করা হবে"।

"এটি আমাদের আমাদের রাজনৈতিক প্রতিশ্রুতিও। তাই কোনো বাধাই আমলে নেওয়া হবে না। তবে জোর করে কোনো আইন বা নিয়ম কারও ওপর চাপিয়ে দেওয়া হবে না", যোগ করেন তিনি।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (কলেজ) মাহামুদ-উল হক, অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক প্রমুখ।