• সোমবার, জুন ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৯ রাত

খোলা আকাশের নিচে পাঠদান, বৃষ্টি হলেই ছুটি

  • প্রকাশিত ০৯:৩৯ রাত মে ১৭, ২০১৯
খোলা আকাশের নিচে পাঠদান
নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার ৪৫নং ধোপাদহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একমাত্র ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় বাধ্য হয়েই খোলা আকাশের নিচে চলছে পাঠদান। ছবি: ইউএনবি

বিদ্যালয়টির সহকারী শিক্ষকরা জানান, বিদ্যালয় ভবন ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তারা গাছতলায় পাঠদান করছেন

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার ৪৫নং ধোপাদহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একমাত্র ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় বাধ্য হয়েই খোলা আকাশের নিচে চলছে পাঠদান।

১৯৩২ সালে ২৬ শতক জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত বিদ্যালয়টির বর্তমান ভবনটি ১৯৯৫-৯৬ অর্থবছরে নির্মিত হয়। ব্যবহারের অনুপযোগী এ ভবনে শ্রেণিকক্ষ রয়েছে তিনটি। বিদ্যালয়ে ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা ১৩৯ এবং শিক্ষক সংখ্যা পাঁচজন। বিদ্যালয়টির ফলাফলও সন্তোষজনক।

শিক্ষকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, নির্মাণের ২৩ বছরের মাথায় ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে বিদ্যালয় ভবনটি। এর ছাদ, বিম ও দেয়ালে ফাটল থাকায় এবং প্লাস্টার খসে পড়ায় শিক্ষকরা বাধ্য হয়ে মাঠে ক্লাস নিচ্ছেন।

এদিকে, দীর্ঘদিন ধরে বর্ষা আর গ্রীষ্মকালে খোলা আকাশের নিচে ক্লাস করে অসুস্থ হয়ে পড়ছে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এছাড়া বৃষ্টি হলে তারা বিদ্যালয়ে আসে না।

ছাত্র-ছাত্রীরা অভিযোগ করে, খোলা জায়গায় ক্লাস করার কারণে তারা লেখাপড়ায় মনোযোগ দিতে পারে না।

বিদ্যালয়টির সহকারী শিক্ষকরা জানান, বিদ্যালয় ভবন ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তারা গাছতলায় পাঠদান করছেন। এতে নানা রকম সমস্যা হচ্ছে।

এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাছরীন আক্তার বলেন, "বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে একাধিকবার লিখিতভাবে জানিয়েও কোনো ফল হয়নি। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে দ্রুত পদক্ষেপ নিয়ে ভবনটি মেরামত করার দাবি জানাই"।

এ বিষয়ে লোহাগড়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আকবর হোসেন জিজ্ঞেস করা হলে বিদ্যালয়টির নাজুক অবস্থার কথা স্বীকার করে তিনি বলেন, "আমরা বিদ্যালয়টিকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি পাঠিয়েছি। দ্রুতই বরাদ্দ আসবে বলে আশা করছি। বরাদ্দ আসলে ভবনটির কাজ শুরু  করা হবে"।