• বুধবার, ডিসেম্বর ১১, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:১৫ রাত

গাড়ি চালকের চোখ উপড়ে নিল যুবলীগ নেতা

  • প্রকাশিত ০২:৫৮ দুপুর মে ২৩, ২০১৯
আশুলিয়া
আশুলিয়ার মানচিত্র

এক পর্যায়ে তাদের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে যুবলীগ নেতা অস্ত্র বের করে তাদেরকে হত্যার হুমকি দিয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।

আশুলিয়ায় আধিপত্য বিস্তার ও ব্যবসায়িক বিরোধের জের ধরে এক গাড়ি চালককে কুপিয়ে জখম ও তার চোখ উপড়ে নিয়েছে এক যুবলীগ নেতা। 

২২ মে, বুধবার দুপুরে আশুলিয়ার সরকার বাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 

অভিযুক্ত যুবলীগ নেতার নাম কবির হোসেন সরকার। কবির হোসেন আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক। 

ঘটনায় বুধবার রাতে কবির হোসেন সরকারকে প্রধান আসামিসহ ৭ জনের নাম উল্লেখ করে আরো

অজ্ঞাত ১০ জনের নামে মামলা করা হয়।  মামলার বাদী স্থানীয় ব্যবসায়ী আবিদ সরকার লিমন। 

মামলা সূত্রে জানা গেছে,আধিপত্য বিস্তার ও ব্যবসায়িক সূত্রে যুবলীগ নেতা কবির হোসেন সরকারের সাথে প্রতিবেশী আবিদ সরকার লিমনের বিরোধ ছিল।  বুধবার দুপুরে লিমন তার ছোট ভাইয়ের গাড়ি চালককে সাথে নিয়ে সরকারবাড়ি এলাকায় মসজিদের নির্মাণ কাজ দেখছিলেন। এ সময় হঠাৎ যুবলীগ নেতা কবির হোসেন সরকার, সালাউদ্দিন সরকার, সোহেল সরকারসহ প্রায় ১৫-১৮ জন লোক নিয়ে তাদের উপর হামলা চালান। এ সময় যুবলীগ নেতার লোকজন গাড়ি চালক আলমের চোখ উপড়ে দেয়। এ ছাড়াও তার মাথায় কুপিয়ে জখম করে। এক পর্যায়ে তাদের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে যুবলীগ নেতা অস্ত্র বের করে তাদেরকে হত্যার হুমকি দিয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় গাড়ি চালককে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ব্যবসায়ী আবিদ সরকার লিমন অভিযোগ করে বলেন,“যুবলীগ নেতা পিস্তল ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের উপর হামলা চালায়। আমার সঙ্গে থাকা গাড়ি চালক আলমের চোখ উপড়ে নিয়েছে।”

অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা কবির হোসেন সরকারের মুঠোফোনে একাধিবার ফোন করলেও কলটি রিসিভ হয়নি। 

বিষয়টি নিশ্চিত করে কাশিমপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকবর আলী খান বলেন,“গাড়ি চালকের চোখ উপড়ে দেওয়া ও কুপিয়ে জখমের ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।”

ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও তিনি জানান।