• বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৪৭ সকাল

মামা-ভাগ্নের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে আহত ২০

  • প্রকাশিত ০৪:১১ বিকেল মে ২৪, ২০১৯
ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংঘর্ষ
শুক্রবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে জমি নিয়ে দু'পক্ষের সংঘর্ষ সৈয়দ জাকির হোসাইন/ঢাকা ট্রিবিউন

মামা-ভাগ্নের সংঘর্ষ থামাতে শটগান ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করতে হয়েছে পুলিশকে।

দীর্ঘদিন ধরেই জমি নিয়ে বিরোধ মামা-ভাগ্নের। যার জের ধরে দু'পক্ষের লোকজনের সংঘর্ষ। শুক্রবার (২৪ মে) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার নোয়াগাঁও ইউনিয়নের তেরকান্দা গ্রামে এ ঘটনায় অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। 

এদিন সকাল ১০টার দিকে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে বিবাদমান দুটি পক্ষ। খবর পেয়ে প্রায় দেড় ঘণ্টা পর সরাইল থানা পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, জমি সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে নিয়ে তেরকান্দা গ্রামের ফজলু মিয়ার সঙ্গে তার ভাগ্নে নাজির উদ্দিন নুজুর দীর্ঘদিন ধরেই বিরোধ চলে আসছিল। সম্প্রতি এ বিরোধ মেটাতে একাধিকবার শালিস বৈঠকও করা হয়। থানা পুলিশের উপস্থিতে শালিসের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ঈদের পরে মামা ফজলু মিয়াকে ৫ লাখ টাকা দেওয়ার কথা ছিল ভাগনে নাজির উদ্দিনের। 

কিন্তু শুক্রবার সকালে স্থানীয় বাজারে তর্কে লিপ্ত হন মামা-ভাগ্নে। এক পর্যায়ে তর্ক গড়ায় সংঘর্ষে। উভয় পক্ষের সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সকাল ১০টার দিকে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। প্রায় দেড়ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হন। 

আহতদের মধ্যে- বিলকিস বেগম (১৮), হুসনেয়ারা বেগম (৫৫), ইয়াসিন(১৮), মালু মিয়া(৫৮), মারুফ মিয়া(১৮), সোহাগ মিয়া (৩৪)-কে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বাকিদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সরাইল থানার ওসি মো. মফিজ উদ্দিন ভূইয়া ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, মামা-ভাগ্নের সংঘর্ষ থামাতে ২০ রাউন্ড শটগান এবং পাঁচ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করতে হয়েছে। এ ঘটনায় পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে। পরবর্তীতে সংঘর্ষ এড়াতে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।