• শনিবার, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৬:১৩ সন্ধ্যা

ভারতে পাচার হওয়া কিশোর ৪ মাস পর উদ্ধার

  • প্রকাশিত ১০:১৯ সকাল মে ২৬, ২০১৯
পাচার
প্রতীকী ছবিটি পিক্সাবে থেকে সংগৃহীত।

গত ১৪ ফেব্রয়ারি প্রতিবেশী চান্দালীর মেয়ে হামিদা খাতুন তার ভাইপোকে ফুসলিয়ে সীমান্ত পথে ভারতে নিয়ে যায়। পরে তাকে গোয়াতে বিক্রি করে দেয়। 

তথ্য প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে ভারতে পাচার হওয়া এক কিশোরকে ৪ মাস পরে দেশে ফিরিয়ে এনেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেষ্টিগশেন ( পিবিআই)। এ ঘটনায় তিন জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে।

২৫ মে, শনিবার বেলা ১টার সময় ফিরিয়ে আনা ওই কিশোরের জবানবন্দি গ্রহণের জন্য যশোর আদালতে পাঠানো হয়। 

ফেরত আসা জুয়েল (১১) বেনাপোল পোর্ট থানার বোয়ালিয়া গ্রামের সেলিম হোসেন ছেলে।

ঘটনায় বেনাপোল পোর্ট থানার বোয়ালিয়া গ্রামের চান্দালীর মেয়ে হামিদা তার দুই ছেলে মাতিয়ার ও লুৎফর রহমানের ছেলে আব্দুল মান্নানের নামে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। 

ঘটনায় উদ্ধাকৃত জুয়েলের চাচা জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, গত ১৪ ফেব্রয়ারি প্রতিবেশী চান্দালীর মেয়ে হামিদা খাতুন তার ভাইপোকে ফুসলিয়ে সীমান্ত পথে ভারতে নিয়ে যায়। পরে তাকে গোয়াতে বিক্রি করে দেয়। পরে তাকে উদ্ধারের জন্য যশোর আদালতে মামলা করা হয়। আদালত মামলাটি তদন্তের জন্য যশোরের পিবিআইকে দায়িত্ব দেন। এরপর পিবিআই তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে চার মাস পরে তাকে ভারত থেকে ফেরত আনেন। 

যশোর পিবিআই এর পরিদর্শক মোনায়েম হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, “উদ্ধারকৃত কিশোরের জবনবন্দী গ্রহণের জন্য যশোর আদালতে পাঠানো হয়েছে।”