• রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৭:৪১ রাত

মরণফাঁদে রূপ নিচ্ছে দেশের প্রথম দ্বিতল রেলওয়ে স্টেশন ভবন

  • প্রকাশিত ০৮:০১ রাত জুন ১৭, ২০১৯
ঘোড়াশাল রেলওয়ে স্টেশন
ঝূঁকিপূর্ণ ঘোড়াশাল রেলওয়ে স্টেশন ভবন ঢাকা ট্রিবিউন

ব্যস্ত এই স্টেশনটি ব্যবহার করে রাজধানীসহ বিভিন্ন জেলায় প্রতিনিয়ত যাতায়াত করেন হাজারও যাত্রী।

মরণফাঁদে পরিণত হচ্ছে নরসিংদীর ঘোড়াশাল ফ্ল্যাগ রেলওয়ে স্টেশনের ভবন। এটিই দেশের প্রথম দ্বিতল রেলওয়ে স্টেশন ভবন। বহু পুরনো এই ভবনটি দীর্ঘকাল সংস্কারের অভাবে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। আর এ অবস্থায়ই চলছে রেলওয়ে স্টেশনের কার্যক্রম। যে কোনো সময় ভবন ধসে হতাহতের আশংকা করছেন স্থানীয়রা।

স্থানীয়রা জানান, শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে অবস্থিত ঘোড়াশাল পৌর এলাকায় এই রেলওয়ে স্টেশনের অবস্থান। স্থানীয়রা ছাড়াও শিল্পসমৃদ্ধ ঘোড়াশালের বিভিন্ন কারখানায় কর্মরত আছেন প্রায় ৪০ হাজার মানুষ। ফলে ব্যস্ত এই স্টেশনটি ব্যবহার করে রাজধানীসহ বিভিন্ন জেলায় প্রতিনিয়ত যাতায়াত করেন হাজারও যাত্রী।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, যাতায়াতে সড়কপথের ঝক্কি এড়াতে তাদের বেশিরভাগেরই প্রথম পছন্দ রেলপথ। কিন্তু ব্রিটিশ আমলে নির্মিত স্টেশনের বহু পুরনো ভবন এখন মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। খসে পড়ছে নিচতলার ছাদের পলেস্তারা, ফাটল ধরেছে বেশ কয়েকটি পিলারে। ফলে যে কোনো সময়েই ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।

ভবনের জীর্ণদশা। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

এই স্টেশন থেকে নিয়মিত রাজধানীতে যাতায়াতকারী যাত্রী আশরাফুল আলম গাজী বলেন, রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ স্টেশনের এই পুরনো ভবনের সংস্কার কাজ করতে না পারলে এটিকে যেন পরিত্যক্ত ঘোষণা করে। 

পাশেই নতুন স্টেশন ভবনের নির্মাণ কাজ শেষ হলেও পুরনো ভবনে স্টেশনের কার্যক্রম পরিচালনা করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

এ বিষয়ে ফোনে যোগাযোগ করা হলে রেলওয়ের বিভাগীয় প্রকৌশলী আব্দুস সালাম ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “প্রধান প্রকৌশলীর অনুমতি ছাড়া এ বিষয়ে আমি কোনো মন্তব্য করতে পারি না।”