• রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৮:১০ রাত

প্রধানমন্ত্রী: দারিদ্র্যের হার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে কমিয়ে আনা হবে

  • প্রকাশিত ০৭:১৬ রাত জুন ২৩, ২০১৯
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
রবিবার বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস প্রশাসন একাডেমিতে ১১০তম, ১১১তম এবং ১১২তম আইন ও প্রশাসন কোর্সের সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: ফোকাস বাংলা

যুক্তরাষ্ট্রের দারিদ্র্যের হারের তুলনায় যেকোনো মূল্যে কমপক্ষে ১ শতাংশ কমে দারিদ্র্যের হার নামিয়ে আনতে হবে

দেশে দারিদ্র্যের হার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চেয়েও কমিয়ে আনা হবে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রবিবার বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস প্রশাসন একাডেমিতে ১১০তম, ১১১তম এবং ১১২তম আইন ও প্রশাসন কোর্সের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, "দেশে দারিদ্র্যের হার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চেয়েও কমিয়ে আনার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে সরকার। বর্তমানে আমরা দারিদ্র্যের হার ২১ দশমিক ৮ শতাংশে নামিয়ে এনেছি। দেশের দারিদ্র্যের হার আরও কমিয়ে আনার লক্ষ্য আমার রয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দারিদ্র্যের হার সম্ভবত ১৭/১৮ শতাংশ। যুক্তরাষ্ট্রের দারিদ্র্যের হারের তুলনায় যেকোনো মূল্যে কমপক্ষে ১ শতাংশ কমে দারিদ্র্যের হার নামিয়ে আনতে হবে।"

এসময় তিনি সরকারি কর্মচারীদের কর্মস্থলে ক্রমাগত পরিবর্তনশীল প্রযুক্তি এবং পরিবেশের সাথে মানিয়ে নেয়ার আহ্বান জানান।

শেখ হাসিনা বলেন, "বর্তমান বিশ্ব নতুন প্রযুক্তি আবিষ্কারের সঙ্গে ক্রমাগত পরিবর্তন হচ্ছে। এ রকম অনেক পরিবর্তন কর্মক্ষেত্রেও ঘটতে পারে, আপনাদের এর সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হবে"।

এছাড়াও সিভিল সার্ভিসের কর্মকর্তাদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশ ও এর জনগণের প্রতি ভালোবাসা এবং মোহ থেকে সেবা প্রদান করতে হবে।

"শুধু চাকরির জন্যই চাকরি করা নয়। আপনি যদি নিজের মনে ভেতরে দেশ ও দেশের মানুষের প্রতি দায়িত্ববোধ, দেশপ্রেম এবং জবাবদিহিতা লালন-পালন করতে পারেন তাহলে দেশ অবশ্যই উন্নতিলাভ করবে," বলেন তিনি।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, জনপ্রশাসন বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান এইচ এন আশিকুর রহমান, জনপ্রশাসন সচিব ফয়েজ আহম্মদ, বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস প্রশাসন একাডেমির রেক্টর কাজী রওশন আক্তার।

এর আগে ১১০তম, ১১১তম এবং ১১২তম আইন ও প্রশাসন কোর্সের প্রশিক্ষণার্থীদের হাতে সনদ তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।