• শনিবার, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৪৫ দুপুর

ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহতদের মধ্যে দু’জন নার্সিং কলেজের শিক্ষার্থী ছিলেন

  • প্রকাশিত ১২:২৮ দুপুর জুন ২৪, ২০১৯
উপবন এক্সপ্রেস
সিলেট থেকে ঢাকাগামী আন্তঃনগর ট্রেন উপবন এক্সপ্রেস মৌলভীবাজারে ব্রিজ ভেঙে খাদে পড়ে যায়। ঢাকা ট্রিবিউন

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ফয়সল আহমেদ চৌধুরী এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহতদের মধ্যে দুইজন সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নার্সিং কলেজের শিক্ষার্থী ছিলেন বলে জানা গেছে। নিহত ওই দুই নারী হলেন- জেলার মোল্লাহাট থানাধীন বানদর খোলা গ্রামের সানজিদা আক্তার ও সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার জালালপুরের আব্দুল্লাপুর গ্রামের ফাহমিদা ইয়াসমিন ইভা। তারা ২ জন তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। 

এর মধ্যে ফাহমিদার মরদেহ ইতোমধ্যেই তাঁর পরিবারের লোকজন নিয়ে গেছেন। নিহত সানজিদার লাশ আনার জন্য তার কলেজের একটি অ্যাম্বুলেন্স কুলাউড়ার উদ্দেশে রওনা দিয়েছে।

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ফয়সল আহমেদ চৌধুরী এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, "ট্রেন দুর্ঘটনায় তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ফাহমিদা ইয়াসমিন ইভা ও সানজিদা মারা গেছেন। এর মধ্যে ফাহমিদার বাড়ি সিলেটের দক্ষিণ সুরমার জালালপুরের আব্দুল্লাহপুর গ্রামে। তার স্বজনরা সোমবার সকালে তার মরদেহ বাড়িতে নিয়ে গেছেন। অন্যদিকে সানজিদার মরদেহ আনতে কলেজের অ্যাম্বুলেন্স কুলাউড়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছে"।

উল্লেখ্য, রবিবার রাতে সিলেট থেকে ঢাকা যাওয়ার পথে মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার বরমচাল স্টেশন পার্শ্ববর্তী বড়ছড়া খালের উপরের কালভার্টটি ভেঙে উপবন এক্সপ্রেসের পাঁচটি বগি লাইনচ্যুত হয় এবং একটি বগি খালে পড়ে যায়। এই ঘটনায় অন্তত ৫ জন নিহত এবং ৬৭ জন আহত হয়েছেন।

এদিকে দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে সোমবার সকালে ৪ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী ৩ কার্যদিবসের মধ্যে কমিটিকে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।