• শুক্রবার, ডিসেম্বর ০৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৬:৫১ সন্ধ্যা

জাবিতে মিষ্টি খাওয়া নিয়ে গোলাগুলি, আহত ৬৫ (ভিডিও)

  • প্রকাশিত ০৪:২৮ বিকেল জুলাই ৩, ২০১৯
জাবি
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলায় দু’পক্ষের সংঘর্ষ। ঢাকা ট্রিবিউন

এক পর্যায়ে দুই হলের ছাত্ররা পিস্তল, রামদা, রড, হকিস্টিক নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় অন্তত ১০ রাউন্ড গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে কয়েক দফা ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়।   

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে মিষ্টি খাওয়া নিয়ে দু’পক্ষের গোলাগুলি-সংঘর্ষে সাংবাদিক ও পুলিশসহ অন্তত ৬৫ জন আহত হয়েছেন। এরমধ্যে ৩৫ জনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে প্রথমিক চিকিৎসা দিয়ে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 

৩ জুলাই, বুধবার দুপুর সোয়া ২টার দিকে থেকে এ সংঘর্ষ শুরু হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ক্যাম্পাসে পাঁচ প্লাটুন পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলার একটি দোকানে চা পান করছিলেন ভাসানী হলের ৪৫ তম ব্যাচের ছাত্র সৌরভ কাপালি। এ সময় সেই দোকানে মিষ্টি খেতে যান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের ৪৬তম ব্যাচের দু’জন শিক্ষার্থী। মিষ্টি খাওয়ার সময় সৌরভ কাপালির সঙ্গে ওই দুজনের গায়ে ধাক্কা লাগে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সৌরভ ওই দু’জনকে থাপ্পড় দেন। ঘটনায় তিনজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ সময় সেখানে ভাসানী হলের আরও ১০-১৫ জন শিক্ষার্থী উপস্থিত হয়ে তারা বঙ্গবন্ধু হলের ওই দুই শিক্ষার্থীকে মারধর করেন। এ খবর হল দুটিতে ছড়িয়ে পড়লে এক পর্যায়ে দুই হলের ছাত্ররা পিস্তল, রামদা, রড, হকিস্টিক নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষ চলাকালে অন্তত ১০ রাউন্ড গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে কয়েক দফা ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলায় ছাত্রলীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষ। ঢাকা ট্রিবিউন

পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট ছোঁড়ে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা আরো জানান, সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে সহকারী প্রক্টর মহিবুর রৌফ শৈবাল ও রেজাউল হক নামে এক পুলিশ পরিদর্শক আহত হয়েছেন। এছাড়া সংঘর্ষের ভিডিও ধারণ করতে গিয়ে দৈনিক সংবাদের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি জুবায়ের কামাল নামের এক সাংবাদিককে মারধর করেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের ৪৪ তম ব্যাচের শিক্ষার্থী সিয়াম চৌধুরী।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলায় ছাত্রলীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষ। ঢাকা ট্রিবিউন

বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্রের চিকিৎসক রিজওয়ানুর রহমান জানান, জখম হয়ে ৬৫ জন শিক্ষার্থী চিকিৎসা কেন্দ্রে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। এর মধ্যে ৩৫ জনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাদেরকে এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 

এদিকে সংঘর্ষের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জুয়েল রানা বলেন, “দুই হলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ছাত্রলীগের কেউ যদি সরাসরি জড়িত থাকে বা ইন্ধন দিয়ে থাকে তবে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকেও ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানাবো।” 

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসান বলেন, “বটতলায় ছোটখাট বিষয় নিয়ে দুই হলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা শুরু হয়। পরে পুলিশ ডাকা হয়েছে। এখন পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে। তবে আরও সংঘর্ষ হওয়ার আশংকা আছে।”