• সোমবার, আগস্ট ২৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৪৩ সকাল

‘পদ্মা সেতুতে মানুষের মাথা লাগবে’ গুজব ছড়ানোয় গ্রেপ্তার ১

  • প্রকাশিত ০৯:০০ রাত জুলাই ১১, ২০১৯
পদ্মা সেতু গুজব
ছবি: ইউএনবি

এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা দায়ের করেছে

গত কয়েকদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে গলাকাটা ও ছেলেধরা গুজবের অপপ্রচার চালানোর অভিযোগে চারজনকে শনাক্ত করেছে ভোলার পুলিশ। এরমধ্যে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে তারা।

বুধবার (১০ জুলাই) দুপুরে চরফ্যাশন উপজেলার চর মাদ্রাজ ইউনিয়নের চর নিউটন এলাকার রাস্তা থেকে আ. শহিদ হাওলাদার (৩০) নামে যুবককে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা ইউএনবি।

তবে এঘটনায় জড়িত অভিযুক্ত বাকি তিনজনকে এখনও গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ভোলা পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কয়সার সংবাদ সম্মেলনে জানান জানান, গত ৬ জুলাই থেকে একটি চক্র ফেসবুকে পদ্মা সেতুর জন্য এক লাখ কাটা মাথা লাগবে বলে গুজব ছড়ায়। এতে ভোলায় শিশুসহ শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দেয়। এরপর থেকে গোয়েন্দা পুলিশ অভিযান শুরু করে। এর মধ্যে ভোলায় তিনজন ও দুবাইয়ে একজনকে শনাক্ত করা হয়।

তিনি আরও জানান, এদের মধ্যে শহিদকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ সময় তার কাছ থেকে একটি ব্যাগ ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে প্রথমে সে বিষয়টি অস্বীকার করে এবং তার মোবাইলের মেসেঞ্জার ও ফেসবুক অ্যাপস মুছে ফেলে। পরবর্তীতে সেগুলো ইনস্টল করা হলে তার ফেসবুকে ও মেসেঞ্জারে মাথা কাটার গুজব ছড়ানোর সত্যতা পাওয়া যায়।

পুলিশ সুপার জানান, গুজব ছড়ানোর সাথে জড়িত অন্যান্যরা পালিয়ে গেছে। তাদের একজন বর্তমানে চট্টগ্রামে অবস্থান করছে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা দায়ের করেছে।

চরফ্যাসন থানার ওসি সামসুল আরেফিন জানান, আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে হাজির করে পুলিশ ৫ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেছে। আগামী সপ্তাহে এবিষয়ে শুনানি হবে।