• বুধবার, নভেম্বর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০৯ রাত

ভিসা জটিলতা: নাসায় যাওয়া অনিশ্চিত টিম অলিকের

  • প্রকাশিত ০৯:২৩ রাত জুলাই ১২, ২০১৯
টিম অলিক
টিম অলিক ঢাকা ট্রিবিউন

'একটি দল প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পরেও অংশগ্রহণ করতে না পারলে ভবিষ্যতে দেশের তরুণ প্রতিযোগীরা উৎসাহ হারিয়ে ফেলবে'

ভিসা না পাওয়ায় নাসায় যাওয়া অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে নাসা ‘স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৮’ প্রতিযোগিতার চ্যাম্পিয়ন দল শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের টিম অলিকের। 

শুক্রবার (১২ জুলাই) টিম অলিক এর পক্ষ থেকে বিষয়টি জানানো হয়। উল্লেখ্য, প্রথমবারের মতো এ প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছিল টিম অলিক। 

টিম অলিক সূত্রে জানা যায়, ২১ থেকে ২৩ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় নাসা কেনেডি স্পেস সেন্টারে তাদের ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। বিমানের টিকিট এবং হোটেল বুকিং দেওয়া হয়েছে।

দলের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, নাসা থেকে টিম অলিককে আমন্ত্রণপত্র দেওয়া হয় চলতি বছরের ২১ জুন। ভিসার জন্য আবেদন করা হয় ১ জুলাই। ১১ জুলাই ভিসার জন্য ইন্টারভিউ দেওয়া হলেও ভিসা আবেদন প্রত্যাখ্যান করে দেয় মার্কিন দূতাবাস থেকে। কারণ হিসেবে আইএন এর ২১৪(বি) ধারায় ভিসা প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে বলে জানায় দূতাবাস।

মার্কিন দূতাবাস জানায়, টিম অলিকের ৫ জনের সঙ্গে আইসিটি মন্ত্রণালয়ের উচ্চপদস্থ ছয় কর্মকর্তা, বেসিসের ৫ জনসহ মোট ১৬ জন সদস্যের একইসঙ্গে নাসায় যাওয়ার আমন্ত্রণপত্র থাকা সত্ত্বেও টিম অলিক এর সদস্য, মেন্টর, বেসিস এর সদস্যসহ মোট ৮ জনের ভিসা প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ এর লোকাল অর্গানাইজার (বেসিস) আইসিটি ডিভিশন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং ইউএস অ্যাম্বাসেডর এর সঙ্গে যোগাযোগ করেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে টিম অলিক এর মেন্টর শাবির সিএসই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক বিশ্বপ্রিয় চক্রবর্ত্তী বলেন, স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৮ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হওয়াটা অবশ্যই বাংলাদেশের জন্য গর্বের। কিন্তু নাসা থেকে আমন্ত্রণ পাওয়া সত্ত্বেও ভিসা সংক্রান্ত জটিলতায় আমাদের সেখানে যাওয়া এখন প্রায় অনিশ্চিত। এমন একটি প্রতিযোগিতায় আমাদের দেশ থেকে একটি দল প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পরেও অংশগ্রহণ করতে না পারলে ভবিষ্যতে দেশের তরুণ প্রতিযোগীরা উৎসাহ হারিয়ে ফেলবে। এসব ক্ষেত্রে সরকার এবং বিভিন্ন দেশের দূতাবাসের উচিত মেধাবীদের পাশে দাঁড়ানো এবং সর্বাত্মক সহায়তা করা।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১৯-২০ অক্টোবর স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ প্রতিযোগিতায় শীর্ষ ৪০টি প্রকল্পকে নিয়ে রাজধানীর ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটিতে টানা ৩৬ ঘণ্টার হ্যাকাথন অনুষ্ঠিত হয়। সেখান থেকে শীর্ষ ৮টি প্রকল্পকে নাসার চূড়ান্ত প্রতিযোগিতার জন্য মনোনয়ন দেওয়া হয়। আটটি মনোনয়নপ্রাপ্ত প্রকল্প থেকে প্রথমবারের মতো দুটি ক্যাটাগরির শীর্ষ চারে জায়গা করে নেয় বাংলাদেশের দুইটি টিম। যার একটি টিম অলিক এবং অন্যটি হচ্ছে টিম প্ল্যানেট কিট। 

চলতি বছরের ১৬ ফেব্রুয়ারি ছয়টি ক্যাটাগরিতে শীর্ষ ২৫টি দলের মধ্যে ছয়টি চ্যাম্পিয়ন দলের নাম ঘোষণা করে নাসা। সেখানে বেস্ট ইউজ অব ডেটা ক্যাটাগরিতে ক্যালিফোর্নিয়া, কুয়ালালামপুর আর জাপানকে পেছনে ফেলে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে শাবির এই টিম অলিক। প্রতিযোগিতায় টিম অলিকের লুনার ভি আর প্রজেক্টটি ছিল মূলত একটি ভার্চুয়াল রিয়েলিটি অ্যাপ্লিকেশন, যার মাধ্যমে ব্যবহারকারী চাঁদে ভ্রমণের একটি অভিজ্ঞতা পাবেন।