• শনিবার, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫২ রাত

আমাকে কেউ কবি বলে না, দুঃখ করে বলেছিলেন এরশাদ

  • প্রকাশিত ০৮:৩০ রাত জুলাই ১৪, ২০১৯
হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ
তাকে কেউ কবি হিসেবে স্বীকৃতি না দেয়ায় দুঃখ করেছিলেন সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। ছবি: সংগৃহীত।

এরশাদ দুঃখ করে বলেছিলেন, 'আমার লেখা পড়লে বুঝবেন আমার মনে কত ব্যথা, কত সুর, কত আনন্দ' 

বর্ণাঢ্য সামরিক ও রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের পাশাপাশি সাহিত্য অঙ্গনেও পদচারণা ছিল প্রয়াত রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের। গল্প, প্রবন্ধ, কবিতায় তিনি ছিলেন সিদ্ধহস্ত। তবে তাকে কেউ কবি বলেন না, এনিয়ে খুব দুঃখ ছিল এরশাদের মনে।   

ঘটনাটি ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ সালের, অমর একুশে বইমেলায়। সেদিন বিকেলে ‘আকাশ প্রকাশন’র স্টলে বসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপ হচ্ছিল এরশাদের। সেই বইমেলায় তার ৯টি বই প্রকাশ হয়েছিল প্রকাশনীটি থেকে। সেদিন বিকেলে নিজের বইয়ের প্রচারণা করতেই মেলায় গিয়েছিলেন এরশাদ। 

সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে,  কেউ তাকে কবি সম্মোধন না করায় খুব দুঃখ করেন তিনি।


আরও পড়ুন: বঙ্গবন্ধু হত্যার সময় কোথায় ছিলেন এরশাদ?


এরশাদ দুঃখ করে বলেছিলেন, “এবার বইমেলায় আমার ৯টি বই প্রকাশ হয়েছে। আশা করছি, যারা কিনবে, পড়বে তাদের ভালো লাগবে। আমাকে কেউ কবি বলেন না। আমিও বলব না, আমি কবি। আমার লেখা পড়লে বুঝবেন আমার মনে কত ব্যথা, কত সুর, কত আনন্দ। আজ আপনাদের সঙ্গে কথা বলতে পেরেও খুব আনন্দ লাগছে।”

এরশাদ বলেছিলেন, “আমি এদেশের পথে-প্রান্তরে ঘুরে বেড়িয়েছি। মানুষ আমাকে নানাভাবে অনুপ্রাণিত করেছে। মানুষের ব্যথায় আমি ব্যথা পেয়েছি, মানুষের আনন্দে আমি আনন্দিত হয়েছি। এসব নিয়েই আমার সব লেখা।”


আরও পড়ুন: ১৯৭১ সালে কোথায় ছিলেন এরশাদ?


এসময় এরশাদ জানান, ১৯৮৩ সালে বইমেলার প্রস্তুতি থাকলেও সেবছর পুলিশ মেলা করতে দেয়নি। ১৯৮৪ সালে তার আমলেই পুরোদমে শুরু হয় বইমেলা।