• শনিবার, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:২১ দুপুর

কলেজ ছাত্রীর অশ্লীল ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে গ্রেপ্তার শেকৃবির ছাত্র

  • প্রকাশিত ০৯:৪১ রাত জুলাই ১৬, ২০১৯
বগুড়া
অভিযুক্ত ইমরান শেখ ইমন। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

অভিযুক্ত ইমরান শেখ ইমনের বাবা আবদুল খালেক বগুড়া আর্মড পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর হিসেবে কর্মরত।

বগুড়ায় কলেজ ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তার অশ্লীল ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ায় ইমরান শেখ ইমন (২৪) নামে শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। 

১৫ জুলাই, সোমবার দুপুরে বগুড়া শহরের সাতমাথা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। 

ইমরান শেখ ইমন রাজধানীর শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্নাতক তৃতীয় বর্ষের ছাত্র। তার গ্রামের বাড়ি নাটোরের বাগাতিপাড়ার বিল গোপালহাটি গ্রাম। অভিযুক্ত ইমরান শেখ ইমনের বাবা আবদুল খালেক বগুড়া আর্মড পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর হিসেবে কর্মরত।

বগুড়া সদর থানার এসআই সোহেল রানা জানান, কিছুদিন আগে ইমনের সাথে বগুড়া সরকারি মুজিবর রহমান মহিলা কলেজের উচ্চ মাধ্যমিকের এক ছাত্রীর সাথে পরিচয় হয়। পরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। কিন্তু ওই ছাত্রী ইমনের আসল উদ্দেশ্য টের পেয়ে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে ইমন গত ২৫ মে ওই ছাত্রীকে ফোনে হুমকি দেন। এরপর নিজের কাছে থাকা ও ফেসবুক থেকে সংগ্রহ করা ছাত্রীর ছবি অশ্লীল আকারে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেন। 

ঘটনায় গত ১৪ জুলাই কলেজ ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ইমনের নামে বগুড়া সদর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা করেন। 

মামলার এজাহারে বলা হয়,গত ৬ জুলাই তার স্ত্রীকে ফোন দিয়ে ইমন পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। টাকা দিতে রাজি না হলে ইমন মেয়ের অশ্লীল ছবিগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। এরপরই তিনি জানতে পারেন, তার মেয়ের অশ্লীল ছবি ভাইরাল হয়েছে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই সোহেল জানান, মামলার সূত্র ধরে গত সোমবার দুপুরের দিকে শহরের সাতমাথা এলাকা থেকে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র ইমরান শেখ ইমনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ ছাড়া আলামত হিসেবে ইমনের পাঠানো অশ্লীল ছবির ২৮টি স্ক্রিনশর্ট জব্দ করা হয়েছে। 

এদিকে ঘটনার বিষয়ে জানতে ইমনের বাবা বগুড়া আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নে কর্মরত সাব-ইন্সপেক্টর আবদুল খালেককে একাধিকবার মোবাইলে কল করা হলেও কলটি রিসিভ হয়নি।