• শনিবার, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৩৪ সকাল

শিক্ষিকার শ্লীলতাহানির অভিযোগে অধ্যক্ষের ১০ বছর কারাদণ্ড

  • প্রকাশিত ০৫:৫২ সন্ধ্যা জুলাই ১৮, ২০১৯
আসামি সেলিম চৌধুরী
আদালত প্রাঙ্গনে পুলিশ হেফাজতে সাজাপ্রাপ্ত আসামি সেলিম চৌধুরী। ঢাকা ট্রিবিউন

একই কলেজের ইসলামের ইতিহাস বিভাগের এক শিক্ষিকার শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন অধ্যক্ষ সেলিম চৌধুরী

কুষ্টিয়ায় মাসুদ রুমী ডিগ্রি কলেজের এক শিক্ষিকার শ্লীলতাহানির অভিযোগে দায়ের করা মামলায় একই কলেজের অধ্যক্ষকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।   

বৃহস্পতিবার সকালে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক মুন্সী মো. মশিয়ার রহমান আসামির উপস্থিতিতে এ আদেশ দেন।

একই সাথে তাকে ১ লাখ টাকার অর্থদণ্ড দেয়া হয়। কুষ্টিয়া জজ কোর্টের  (নারী ও শিশু) সরকারি কৌঁসুলি আকরাম হোসেন দুলাল রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি সেলিম চৌধুরী ওরফে সজল চৌধুরী (৪৫) কুষ্টিয়া শহরের মিলপাড়া আহম্মেদ লেন এলাকার চৌধুরী আব্দুল আলীর ছেলে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ২০১৪ সালের ৩০ মার্চ মাসুদ রুমী ডিগ্রি কলেজের একটি কক্ষে একই কলেজের ইসলামের ইতিহাস বিভাগের এক শিক্ষিকার শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন অধ্যক্ষ সেলিম চৌধুরী। এই ঘটনায় ওই শিক্ষিকা বাদী হয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। কুষ্টিয়া মডেল থানা পুলিশ ২০১৪ সালের ১৩ আগস্ট আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালত আজ এ  রায় দেন।

এ প্রসঙ্গে পিপি অ্যাডভোকেট আকরাম হোসেন দুলাল বলেন, "কুষ্টিয়া মডেল থানার দায়ের করা শিক্ষিকার শ্লীলতাহানির মামলায় একই কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ সন্দেহাতীত প্রমাণিত হওয়ায় তাকে দশ বছর কারাদণ্ডসহ এক লাখ টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে আরো ছয় মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।"