• মঙ্গলবার, আগস্ট ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০২:২১ দুপুর

ঢাকা ট্রিবিউনের অর্ধযুগ পূর্তি উদযাপন

  • প্রকাশিত ০৭:২৫ রাত জুলাই ১৯, ২০১৯
ঢাকা ট্রিবিউন
অর্ধযুগ পূর্তি উদযাপন করছে ঢাকা ট্রিবিউন। ছবি: মাহমুদ হোসাইন অপু

ঢাকা ট্রিবিউনের প্রকাশক কাজী আনিস আহমেদ তার বক্তব্যে বলেন, ভবিষ্যতে সাংবাদিকতার নেতৃত্বে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে ঢাকা ট্রিবিউন কাজ করে যাবে

অর্ধযুগ পূর্তি উদযাপন করছে প্রিন্ট ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল ঢাকা ট্রিবিউন।

এ উপলক্ষে শুক্রবার (১৯ জুলাই) বিকেলে রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে ঢাকা ট্রিবিউনের সম্পাদক জাফর সোবহান পত্রিকাটির বিভিন্ন অর্জন তুলে ধরেন। 

তিনি বলেন, "আমাদের এই অগ্রযাত্রায় যারা সঙ্গে ছিলেন তাদের সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।"

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ঢাকা ট্রিবিউনের প্রকাশক কাজী আনিস আহমেদ এবং পরিচালক মন্ডলীর সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ ও ইনাম আহমেদ।

ঢাকা ট্রিবিউনের প্রকাশক কাজী আনিস আহমেদ তার বক্তব্যে বলেন, ভবিষ্যতে সাংবাদিকতার নেতৃত্বে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে ঢাকা ট্রিবিউন কাজ করে যাবে। এজন্য তিনি নিউজ পোর্টালটির সাংবাদিক ও কর্মীদের ধন্যবাদ জানান। 

"ব্রেকিং নিউজ, ব্রেকিং ব্যারিয়ার্স" থিমে নিয়ে এগিয়ে চলা ঢাকা ট্রিবিউন বর্তমানে দেশের অন্যতম জনপ্রিয় প্রিন্ট ও নিউজ পোর্টাল। চ্যালেঞ্জিং, পেশাদারি ও প্রশংসনীয় কাজের মাধ্যমে পত্রিকাটি আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও পরিচিত তুলে ধরতে পেরেছে।

২০১৩ সালের ১৯ এপ্রিল ঢাকা ট্রিবিউন প্রথম প্রকাশিত হয়। 

প্রকাশের পাঁচ দিনের মাথায় সাভারের রানা প্লাজা ধ্বসে পড়ার ঘটনার সংবাদ পত্রিকাটির সাংবাদিক ও আলোকচিত্রীরা সরেজমিনে উপস্থিত থেকে সরবরাহ করে। পত্রিকাটির কর্মীরা এরপর আরও বহু ঘটনার প্রতিবেদন তৈরি করেছে যার মধ্যে আছে রোহিঙ্গা শরনার্থীদের মতো আন্তর্জাতিকভাবে আলোচিত ঘটনাও। 

সংবাদ তৈরি ছাড়াও "গ্ল্যাড টু বি আ বাংলাদেশি" ও "আই অ্যাম মেইড ইন বাংলাদেশ" এর মতো পুরষ্কারপ্রাপ্ত মার্কেটিং ক্যাম্পেইনের জন্যও ঢাকা ট্রিবিউন বেশ পরিচিতি লাভ করে।

আজকের অনুষ্ঠানে ঢাকা ট্রিবিউনের সম্পাদক ও প্রকাশক নিউজ পোর্টালটির ১০ জন কর্মীর হাতে "ঢাকা ট্রিবিউন স্পেশাল রিকগনিশন অ্যাওয়ার্ড" তুলে দেন। দক্ষতা ও নিষ্ঠার সাথে দীর্ঘ দিন কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ তাদেরকে এ সম্মাননা প্রদান করা হয়। 

অনুষ্ঠানে রাজনীতিক, শিক্ষাবিদ, কর্পোরেট ব্যক্তিত্ব, সাংবাদিক, বিনোদন জগতের ব্যক্তিত্ব, উন্নয়ন কর্মী ও বিদেশী গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।