• শনিবার, নভেম্বর ১৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩২ রাত

দুদকের নজরে সরকারদলীয় ১০-১৫ জন প্রভাবশালী

  • প্রকাশিত ০৮:৩৮ রাত জুলাই ২০, ২০১৯
দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ
দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। ফাইল ছবি।

'এছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের এক দলে রয়েছেন ১৫ জন, আরেক দলে রয়েছেন ১২ জন, আরেক দলের ব্যবসার সঙ্গে সম্পৃক্ত ইনকোয়ারিতে আছেন প্রায় ২৫ জন'

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দুর্নীতি বিরোধী অনুসন্ধানের তালিকায় ১০-১৫ জন সরকারদলীয় প্রভাবশালী সদস্যের নাম রয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ।

শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবর হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ আয়োজিত 'দুর্নীতি দমনে আইনজীবী এবং বিচার বিভাগের ভূমিকা' শীর্ষক এক সেমিনারে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলে তিনি।

দুদক চেয়ারম্যান বলেন, "অনেকেই বলেন সরকারদলীয় মন্ত্রী-এমপিদের কিছু করা হয় না। আমার জানা মতে, আন্ডার প্রসিকিউশন, আন্ডার ইনভেস্টিগেশনের নামে ইনকোয়ারিতে ১০-১৫ জন রয়েছেন সরকারদলীয়।"

"এছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের এক দলে রয়েছেন ১৫ জন, আরেক দলে রয়েছেন ১২ জন, আরেক দলের ব্যবসার সঙ্গে সম্পৃক্ত ইনকোয়ারিতে আছেন প্রায় ২৫ জন। অন্যদিকে ঊর্ধ্বতন আমলা থেকে শুরু করে জয়েন সেক্রেটারি পর্যন্ত প্রায় ১৫ জন আছেন", যোগ করেন তিনি। তবে দুদকের নজরে থাকা বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ব্যক্তিদের নাম ও পরিচয় প্রকাশ করেননি দুদক চেয়ারম্যান।

এসময় 'সরল বিশ্বাসে দুর্নীতি করলে অপরাধ নয়' এমন মন্তব্য প্রসঙ্গে ইকবাল মাহমুদ বলেন, "এই ঘটনার ভিডিও ক্লিপ আপনাদের কাছে আছে। সেখানে আমি দুর্নীতি শব্দ উচ্চারণ করিনি। আপনারা দেখতে পারেন। দুর্নীতি শব্দটি কীভাবে এলো এ ব্যাপারে আমার কোনো ধারণা নেই।"

"আমি কোনও ব্যাখ্যা দিতে প্রস্তুত নই। কারণ দুর্নীতি শব্দটি যারা যোগ করেছেন এটা তাদের দায়, মোটেও আমার দায় নয়", যোগ করেন তিনি।