• বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৯ রাত

ছেলেধরা সন্দেহে ৫ এনজিওকর্মীকে গণপিটুনি

  • প্রকাশিত ০৭:০৬ রাত জুলাই ২২, ২০১৯
গণপিটুনি
প্রতীকী ছবি।

‘এলাকাবাসীর সন্দেহ হলে তারা ওই পাঁচ কর্মীকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা অসংলগ্ন কথাবার্তা বলতে থাকলে স্থানীয়রা তাদের পিটিয়ে পুলিশে খবর দেয়।’

রাজশাহীতে ছেলেধরা সন্দেহে একটি এনজিওর পাঁচ কর্মীকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী।

২২ জুলাই, সোমবার দুপুরে চারঘাট উপজেলার রাওথা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

গণপিটুনির শিকার ব্যক্তিরা হলেন- গোপালগঞ্জ জেলার মকসুদপুর উপজেলার ঝাকরপুর গ্রামের মসলেম উদ্দিনের ছেলে হাফিজুর রহমান (৪২), একই এলাকার আলহাজ আখতারুজ্জামানের ছেলে আবুল হোসেন (৪০), একই এলাকার লুৎফর রহমানের ছেলে রেজাউল করিম (৩৮), ঢাকা দক্ষিণের লালবাগ থানার আব্দুল মজিদের ছেলে কাইয়ুম আলী (৩৯) ও একই এলাকার আবুল কালাম।

তারা আদ-দ্বীন ওয়েলফেয়ার সোসাইটি নামে একটি এনজিওরকর্মী বলে পুলিশের কাছে পরিচয় দিয়েছে।

এ বিষয়ে রাজশাহীর পুলিশ সুপার মো. শহিদুল্লাহ বলেন, “দুপুর ১টার দিকে তারা আদ-দ্বীন ওয়েলফেয়ার সেন্টারের নামে সদস্য সংগ্রহ করছিল। এলাকাবাসীর সন্দেহ হলে তারা ওই পাঁচ কর্মীকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা অসংলগ্ন কথাবার্তা বলতে থাকলে স্থানীয়রা তাদের পিটিয়ে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ তাদের আটক করে থানায় নিয়ে যায়।”

তাদের থানায় রেখে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে বলে জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।

এদিকে চারঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ নাজমুল হক বলেন, “কোনো এনজিও উপজেলায় কাজ করতে চাইলে তাদের পরিচয়সহ কাগজপত্র জমা দিয়ে অনুমতি নিতে হয়। তবে তারা কোনো অনুমতি নেয়নি।”