• বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:২৩ রাত

নাতিকে বিক্রি করতে নানির 'নাটক'

  • প্রকাশিত ০৯:৪২ রাত জুলাই ২৪, ২০১৯
রানু বেগম
রানু বেগম। ছবি : ইউএনবি

জিজ্ঞাসাবাদে রানু বেগম তাওহিদকে ১২ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেওয়ার কথা স্বীকার করেন।

নরসিংদীর পলাশ উপজেলায় সাড়ে তিন বছরের নাতিকে 'নাটক' সাজিয়ে ১২ হাজার টাকায় বিক্রির অভিযোগে রানু বেগম (৫২) নামের এক নারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৪ জুলাই) রাতে গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া উপজেলার দক্ষিণগাঁও গ্রাম থেকে শিশু তাওহিদকে উদ্ধার করে পুলিশ।

গ্রেপ্তার রানু বেগম (৫২) পলাশ উপজেলার ঘোড়াশাল পৌর এলাকার বালুচর পাড়া গ্রামের নান্নু মিয়ার স্ত্রী।

পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. নাসির উদ্দিন জানান, নান্নু মিয়ার মেয়ে রোকসানা বেগম তিন মাস আগে গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার জামালপুর গ্রামের হতদরিদ্র আলাউদ্দিনের কাছ থেকে তাওহিদকে পালক হিসেবে আনেন। গত ঈদুল ফিতরের ১০ দিন পর রোকসানা তাওহিদকে মা-বাবার (নানা-নানি) কাছে রেখে সাতক্ষীরায় স্বামীর বাড়ি চলে যান। এরপর শিশুটিকে রোকসানার মা-বাবা লালন-পালন করতে থাকেন। 

গত রোববার সন্ধ্যায় রোকসানার বাবা নান্নু মিয়া রানু বেগমকে তাওহিদ কোথায় জিজ্ঞাসা করলে তিনি জানান, তাওহিদকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। পরে ওইদিন রাতেই নান্নু মিয়া বাদী হয়ে পলাশ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

ওসি আরও জানান, রোকসানার মা রানু বেগমকে সন্দেহ হলে পুলিশ প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে আটক করে। জিজ্ঞাসাবাদের পর রানু বেগম তাওহিদকে ১২ হাজার টাকায় গাজীপুরের কাপাসিয়ার দক্ষিণগাঁও গ্রামের নিঃসন্তান বাবুল মিয়ার কাছে বিক্রি করে দেওয়ার কথা স্বীকার করেন।