• শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:১৮ দুপুর

কুড়িগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের তিনজনসহ নিহত ৪

  • প্রকাশিত ০৪:২৩ বিকেল জুলাই ২৬, ২০১৯
কুড়িগ্রাম সড়ক দুর্ঘটনা
শুক্রবার কুড়িগ্রামে বাসের ধাক্কায় অটোরিকশার চার আরোহী নিহত হন ঢাকা ট্রিবিউন

দুর্ঘটনার পর আধাঘণ্টা সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকে

কুড়িগ্রামে বাসের ধাক্কায় একই পরিবারের ৩ জনসহ চার জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও ২ জন। শুক্রবার (২৬ জুলাই) সকাল সাড়ে ১১টায় কুড়িগ্রাম-রংপুর সড়কের কাঁঠালবাড়ি কলেজের পাশে এ দুর্ঘটনা ঘটে। 

কুড়িগ্রাম সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) রাজু সরকার হতাহতের বিষয়টি ঢাকা ট্রিবিউনকে নিশ্চিত করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও নিহতদের স্বজনরা জানান, পরিবারের লোকজনকে নিয়ে ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সা করে লালমনিরহাটের বড়বাড়ীতে আত্মীয়ের বাড়ি থেকে কুড়িগ্রামে নিজেদের বাড়িতে ফিরছিল একটি পরিবার। তাদের অটোরিক্সাটি কাঁঠালবাড়ী কলেজের কাছে পৌঁছালে বগুড়া থেকে কুড়িগ্রামগামী অর্পণ নামে (কুমিল্লা-জ ১১-০০১০) একটি মিনিবাস পেছন থেকে সেটিকে ধাক্কা দেয়। এতে চালকসহ অটোরিক্সার ৬ যাত্রী গুরুতর আহত হন। 

স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনজন এবং রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে একজন মারা যান। 

নিহতরা হলেন- সদর উপজেলার করিমের খামার গ্রামের মোস্তফা (৪২), তার স্ত্রী জোসনা (৩২), তাদের নানী আমেনা (৭৫) এবং অটোরিক্সা চালক মানিক (৩৫)। এদের মধ্যে অটোরিক্সা চালক মানিক রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

এ ঘটনায় নিহত মোস্তফা-জোসনা দম্পতির মেয়ে মিম (১৫) ও আরেক যাত্রী জাহেদুল (৪৫) গুরুতর আহতাবস্থায় কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

দুর্ঘটনার পর আধাঘণ্টা সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে।  

কুড়িগ্রাম সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) রাজু সরকার জানান, দুর্ঘটনাকবলিত বাস ও অটোরিক্সাটিকে থানায় নেওয়া হয়েছে। বাসের চালক পলাতক রয়েছে। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।