• শুক্রবার, ডিসেম্বর ০৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:১৭ রাত

‘এখন প্রায়ই বাঘের গর্জন শোনা যায়’

  • প্রকাশিত ০৮:৩০ রাত জুলাই ২৯, ২০১৯
সাতক্ষীরা
সাতক্ষীরায় বাঘ দিবসের আলোচনা। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

বিশেষ করে পশ্চিম সুন্দরবনের সাতক্ষীরার মাহমুদা নদীর এলাকায় প্রায়ই বাঘ দেখা যাচ্ছে।

“বাঘ বাড়াতে শপথ করি, সুন্দরবন রক্ষা করি” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বাঘের আবাস রক্ষা এবং বাঘ রক্ষায় মানুষের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টিতে বিশ্ববাঘ দিবস উপলক্ষে সাতক্ষীরায় আলোচনাসভা ও র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে ২৯ জুলাই, সোমবার দুপুরে সাতক্ষীরার শ্যামনগরের সুন্দরবনের পাদদেশে মুন্সীগঞ্জ বনবিভাগের টহলফাড়িতে এক আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।

বুড়িগোয়ালিনী স্টেশন কর্মকর্তা আক্তারুজ্জামানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন সুন্দরবন পশ্চিম বনবিভাগের সহকারী বন সংরক্ষক মো. রফিক উদ্দিন, ষ্টেশন অফিসার (এস.ও) বেলাল হোসেন, কামরুল হাসান প্রমুখ। আলোচনাসভা শেষে সেখান থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি মুন্সিগঞ্জের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই জায়গায় এসে শেষ হয়। 

বক্তারা জানান, সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা সর্বশেষ ক্যামেরা ট্রাপিংয়ের জরিপ অনুযায়ী ১১৪টি। তারা জানান, সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা বাড়ছে। বিশেষ করে পশ্চিম সুন্দরবনের সাতক্ষীরার মাহমুদা নদীর এলাকায় প্রায়ই বাঘ দেখা যাচ্ছে। যেটা আগে দেখা যেত না।

মো. রফিক উদ্দিন বলেন, “সুন্দরবনে যাওয়া জেলে, বাওয়ালি ও মৌয়ালদের কাছ থেকে বাঘ বৃদ্ধির কথা শোনা যায়। অনেক মৌয়াল ও জেলেরা বলেন, আগের তুলনায় বনে বাঘ বৃদ্ধি পেয়েছে। আগে বাঘের গর্জন কম শোনা যেত। কিন্তু এখন প্রায়ই বাঘের গর্জন শোনা যায়।”