• মঙ্গলবার, নভেম্বর ১৯, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০২:৩১ দুপুর

মোংলায় জালে আটকে বিপদাপন্ন প্রজাতির ডলফিনের মৃত্যু

  • প্রকাশিত ০৩:৩৮ বিকেল আগস্ট ১, ২০১৯
ডলফিন
শ্বাস আটকে ডলফিনটির মৃত্যু হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত

স্থানীয়রা ডলফিনটিকে উদ্ধার করে বন বিভাগকে খবর দেন। এ সময় ডলফিনটির দাঁতে জাল প্যাঁচানো ছিল। এর দৈর্ঘ্য ৮ ফুট।

বাগেরহাটের রামপালের কালেখাবেড় এলাকার মোংলা নদী থেকে একটি মৃত ডলফিন (শুশুক) উদ্ধার করা হয়েছে।

৩১ জুলাই, বুধবার রামপাল উপজেলার রাজনগর ইউনিয়নের বড় দুর্গাপুর এলাকার দিগরাজ কোস্টগার্ড অফিসের নিকটবর্তী মোংলা নদীর তীর থেকে ওই ডলফিনটি উদ্ধার করেন স্থানীয়রা। 

বন বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, শুশুকের মৃত্যুর খবর পেয়ে রাত ৯টার দিকে সংশ্লিষ্ট এলাকায় ছুটে যান বন বিভাগের বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ ইউনিটের বন্যপ্রাণী অপরাধ নিয়ন্ত্রণ দলের সদস্যরা। পরে রাত ৯টার দিকে কালেখাবেড় এলাকার এক ব্যক্তির কাছ থেকে শুশুকটি উদ্ধার করা হয়।   

বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. মদিনুল আহসান জানান, এই ডলফিনটি (Ganges River Dolphin) বাংলাদেশে বিপদাপন্ন অবস্থায় রয়েছে। মোংলা নদীতে মৃত অবস্থায় ভাসতে দেখে স্থানীয়রা ডলফিনটিকে উদ্ধার করে বন বিভাগকে খবর দেন। এসময় ডলফিনটির দাঁতে জাল প্যাঁচানো ছিল। এর দৈর্ঘ্য ৮ ফুট। পরে এটির মৃত্যুর কারণ খুঁজে বের করতে পোস্টমর্টেম করেন খুলনা জেলা অতিরিক্ত জেলা প্রাণীসম্পদ অফিসার ডা. অরুন কান্তি মন্ডল। 

এবিষয়ে বন বিভাগের খুলনা বিভাগীয় মৎস্য বিশেষজ্ঞ মফিজুর রহমান চৌধুরী ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “জালে আটকে শ্বাসরুদ্ধ হয়ে ডলফিনটির মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইন ২০১২ অনুযায়ী গাঙ্গেও প্রজাতির এই ডলফিন হত্যা শাস্তিযোগ্য অপরাধ।”

ডলফিনটির মৃত্যুর বিষয়ে মো. মদিনুল আহসান ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “পোস্টমর্টেমের পর ডলফিনটিকে মাটিচাপা দেওয়া হয়েছে। ঘটনায় দোষীদের খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে। এছাড়া এধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি যেন না হয় বিষয়টি লক্ষ্য রাখতে ঘটনার দিন রাত সাড়ে ১০টায় স্থানীয় চেয়ারম্যান-মেম্বারসহ জেলেদের নিয়ে একটি সচেতনতামূলক একটি জরুরি মিটিং করা হয়েছে।”